কালীগঞ্জে ফুলকপির চারা পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

প্রকাশিত : আগস্ট ১৬, ২০২২ , ৮:০৭ অপরাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসি, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ঘাস-পোড়া ওষুধ দিয়ে ফুলকপির চারা পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। প্রায় ৫বিঘা জমিতে রোপন যোগ্য ফুলকপির চারা রাতের আঁধারে পুড়িয়ে দিয়েছে। উপজেলার মালিয়াট ইউনিয়নের তত্বিপুর গ্রামে রোববার রাতে এ ঘটনা ঘটে। ঐ গ্রামের মৃত নওয়াব আলীর ছেলে বর্গাচাষী রেজাউল করিম ১০ বিঘা জমি বর্গা নিয়ে চাষ করছে। ভুক্তভোগী চাষী রেজাউল করিম জানান, ফুলকপির চারার সাথে কী শত্রুতা তা তিনি নিজেও বুঝতে পারছেন না। গতবছর একই ভাবে তার ঝালের চারাও কে বা কারা পুড়িয়ে দিয়েছিল। তাই তিনি ঝাল চাষ বাদ দিয়ে এবার ফুলকপির চাষে আসেন। কিন্তু ঝালের মতো কপিরও একই পরিণতি হল। ঝাল ও ফুলকপির চাষ করতে গিয়ে তিনি ৫ লাখ টাকার ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন বলে জানান। ঘটনা জানাজানি হলে দেখার জন্য গ্রামের নারী পুরুষ মাঠে আসে । ফুলকপির চারা পুড়ানো দেখে সবাই হতবাক হয়ে যান। কেনো প্রতিবছর এমন ক্ষতিসাধন করে তার কোন কারণ জানা নেই এলাকাবাসীর। মানুষের সাথে শত্রুতা থাকতে পারে কিন্তু কাপুরুষের মত সবজির সাথে শত্রুতা পোষণের কোন মানে হয়না মন্তব্য গ্রামবাসীর। দুর্বৃত্তরা চতুর হওয়ায় তাদের কেও যেনো চিহিৃত করতে না পারে সে কারণে গভীর রাতে এমন ঘটনা ঘটায়। মালিয়াট ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল খাঁ বলেন, আমার কাছে এব্যাপারে কেউ কোন অভিযোগ দেয়নি। তবে এধরনের একটি খবর আমি শুনেছি। যারা এমন ন্যাক্কারজনকভাবে চারার সাথে শত্রুতা করেছে তারা দেশের শত্রু। এমন জঘন্য কাজ কোন সুস্থ মস্তিষ্কের মানুষ করতে পারেনা। এদের উপযুক্ত বিচার হাওয়া দরকার।ঘটনাটি তদন্ত করে জড়িত দের শাস্তির আওতায় আনার দাবী জানান এলাকাবাসীরা। এব্যাপারে কালীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আঃ রহিম মোল্লা জানান, আমার কাছে এখনও পর্যন্ত কেউ কোনো অভিযোগ দেয়নি অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।