কৃষিতে পানি ব্যবস্থাপনা ও জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজন প্রকল্পের কর্মশালা

প্রকাশিত : জানুয়ারি ১১, ২০২৩ , ৯:২৩ অপরাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসী, নিজস্ব প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ঝিনাইদহে কৃষিতে পানি ব্যবস্থাপনা ও জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজন প্রকল্পের মধ্যবর্তী কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এশিয়া আর্সেনিক নেটওয়ার্ক বাংলাদেশ এর বাস্তবায়নে ও পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রণালয় জাপানের আর্থিক সহযোগিতায় দিনব্যাপী এ কর্মশালা স্থানীয় এইড কমপ্লেক্সের মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন ড. শামীম উদ্দীন। কর্মশালায় প্রধান অতিথির আলোচনা রাখেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আজগর আলী।স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাপানের এশিয়া আর্সেনিক নেটওয়ার্ক এর পরিচালক তামিকো ইশিয়ামা। প্রকল্পের আওতায় গবেষণার ফলাফল, ঝিনাইদহে কৃষিতে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব বিষয়ক জরিপ ফলাফলসহ প্রকল্পের অগ্রগতির সচিত্র প্রতিবেদন পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা করেন বঙ্গবন্ধু কৃষি-বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর আবিয়ার রহমান। প্রকল্পের সফলতা নিয়ে আলোচনা করেন প্রকল্পের এরিয়া ম্যানেজার আমিনুল ইসলাম। এছাড়া প্রকল্প শুরু-কালীন অবস্থা ও মধ্যবর্তী অবস্থার মধ্যে তুলনামূলক অগ্রগতি উপস্থাপন করেন প্রকল্পের মনিটরিং এন্ড ডকুমেন্টেশন অফিসার মেহেদী হাসান। আলোচনা রাখেন হরিনাকুন্ডু পৌরসভার মেয়র ফারুক হোসেন,মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট এর বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা শিখা নাসরিন,মহেশপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাসান আলী,শৈলকূপা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আহসান হাবিব,হরিনাকুন্ডু উপজেলা কৃষিসম্প্রসারন কর্মকর্তা রাকিবুল ইসলাম। কৃষিতে পানি ব্যবস্থাপনা ও জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজন প্রকল্পের আওতায় বোরো ধান চাষে ম্যাজিক পাইপের মাধ্যমে পানি সাশ্রয়ী সেচ (ভেজানো-শুকানো পদ্ধতি), ফিতা পাইপ, মাটির নিচে বারিড পাইপ ব্যবহার করে পানির অপচয় রোধ, মিনি পুকুরে মাছ চাষ, পুকুর পাড়ে সবজি চাষ, বিভিন্ন ফসলের বীজ সংরক্ষণ, বসতবাড়ির আঙ্গিনায় সবজি-চাষ সহ জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজন কৌশল বিষয়ে ১৫০০ কৃষক কৃষাণী ভাই বোনদের মধ্যে প্রশিক্ষণ, প্রচার ও প্রসার ঘটানো হয় । এছাড়াও এ প্রকল্পের আওতায় ভার্মি কম্পোস্ট, ট্রাইকোগ্রামা ও জৈব বালাইনাশক ব্যবহারে কৃষকদের উপকরণ সহযোগিতা সহ কৃষকদেরকে ক্লাস প্রশিক্ষণ, এফ এফ স্কুল, গ্রুপ মিটিং করা হয়। কর্মশালায় কৃষিবিদ,বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা,সাংবাদিক,জনপ্রতিনিধি,কৃষক-কৃষাণী সহ শতাধিক ব্যক্তি অংশ গ্রহণ-করেন। মহেশপুর উপজেলার কৃষক সাইদুর রহমান তার কৃষি কাজে সফলতা নিয়ে কর্মশালায় অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন। তিনি ৮ বিঘা জমিতে সমন্বিত কৃষি চাষ করেন। সে জমিতে ধান, তরমুজ,বিভিন্ন রকমের সবজি, ডাল জাতীয় ফসল, ফলজ চাষ করেন। আধুনিক কৃষি চাষে সে একজন সফল ও মডেল কৃষক।এছাড়াও সদর উপজেলার গান্নার কৃষক ও কৃষক নেতা রবিউল ইসলাম আধুনিক কৃষি চাষেও সে একজন সফল ও মডেল কৃষক।