ঝিনাইদহে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী উদযাপিত

প্রকাশিত : আগস্ট ৮, ২০২২ , ৬:৫৭ অপরাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসি, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ‘মহীয়সী বঙ্গমাতার চেতনা-অদম্য বাংলাদেশের প্রেরণা’ বঙ্গমাতার জন্ম দিবসের এই প্রতিপাদ্য নিয়ে ঝিনাইদহে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী উদযাপিত হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও দুস্থ মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ এবং আর্থিক সহায়তা প্রদান অনুষ্ঠান (সোমবার) সকালে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনের সম্মেলন-কক্ষে জেলা প্রশাসন, জাতীয় মহিলা সংস্থা এবং মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসক মনিরা বেগম এর সভাপতিত্বে¡ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন,সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য খালেদা খানম এমপি ,বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মুনতাসিরুল ইসলাম পিপিএম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কনক কান্তি দাস,স্থানীয় সরকার এর উপ-পরিচালক এবং পৌর প্রশাসক মোঃ ইয়ারুল ইসলাম,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ সেলিম রেজা পিএএ, ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, ঝিনাইদহ পৌরসভার সাবেক মেয়র জননেতা আলহাজ্ব মোঃ সাইদুল করিম মিন্টু ও বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রাক্তন জেলা কমান্ডার মোঃ মকবুল হোসেন। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) রথীন্দ্র নাথ রায় বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সালমা সেলিম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) রাজীবুল ইসলাম খান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস.এম শাহিন,জেলা মহিলা শ্রমিক-লীগের আহবায়ক ও জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান ও জেলা নারী সমাজ কল্যাণ সমিতির সভাপতি দীপ্তি রহমান। এছাড়াও ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক মন্জুর পারভেজ তুষার, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম বিশ্বাস, ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক ও সরকারি কৌসুলি জি.পি অ্যাড. বিকাশ কুমার ঘোষ প্রমুখ।অনুষ্ঠানে সরকারি বেসরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা ও বিভিন্ন নারী সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় খালেদা খানম এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের টুঙ্গিপাড়ার খোকা থেকে বাঙালির মুক্তির মহানায়ক জাতির পিতা হয়ে ওঠার পেছনে প্রেরণার উৎস ছিলেন বেগম মুজিব। পরিবার হতে সহায়তা না থাকলে মানুষের জন্য কাজ করা ও রাজনীতিতে টিকে থাকা সম্ভব নয়। বঙ্গবন্ধুর পারিবারিক ও রাজনৈতিক জীবনে সর্বতোভাবে সহযোগিতা করে বাঙালীর মুক্তির সংগ্রামকে এগিয়ে নিতে সহায়তা করেছেন বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিব। তিনি বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বড় ডিগ্রীধারী ছিলেননা না তবে দূরদর্শী জ্ঞানসম্পন্ন ও প্রজ্ঞাবান নারী ছিলেন। দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের বিভিন্ন স্তরে তাঁর বলিষ্ঠ অবদান রয়েছে। বঙ্গবন্ধু রাজনৈতিক কারণে কারাগারে থাকাকালে সাহসের সাথে ফজিলাতুন নেছা মুজিব পরিবার ও দলকে গুছিয়ে রেখেছেন।অনুষ্ঠান শেষে দুস্থ নারীদের মাঝে আর্থিক সহায়তা ও সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়।