শৈলকুপায় দুই গ্রুপের সংঘর্ষে তিন বাড়ি ভাঙচুর : আহত অন্তত ১৫ জন

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ২০, ২০২২ , ৬:১৬ অপরাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসী, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ঝিনাইদহের শৈলকুপার চর গোলকনগর গ্রামে দোকানে মোবাইল রাখাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত হয়েছে অন্তত ১৫ জন। এসময় ৩টি বাড়ি ভাঙচুর করা হয়। মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) সকালে উপজেলার চর গোলকনগর গ্রামের গ্রামবাসীর মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করে শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো. আমিরুল ইসলাম। আহতদের উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল ও শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হলেন, একই গ্রামের কোরবান আলী (৫৯), উম্বাত আলী (৫৫), মামুন হোসেন (১৬),ইউনুস আলী (৩৫), শিপন হোসেন, গফুর মোল্লা (৪৫), আব্দুল মজিদ (৫০), রহিম মোল্লা (৫৫), নজির মোল্লা (৫২) ও রাশেদ আলী (২৭), মধু মন্ডল, শখি, আজাদ ও আজিজুলসহ ১৫ জন। এলাকাবাসী জানায়, ওই গ্রামের ইউনুস মন্ডলের চায়ের দোকানে মোবাইল রেখে বাড়ি চলে যায় একই গ্রামের ইউসুফ মোল্লা। পরে মোবাইল নিতে এলে ইউনুস তা নিজের বলে দাবি করে। এ নিয়ে ওইদিন ইউনুস ও ইউসুফের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনায় গতকাল সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়।
আজ সকালে একই ঘটনার জেরে গ্রাম্য মাতব্বর বাদশা মন্ডলের লোকজনের সঙ্গে আরেক মাতব্বর কুদ্দুস মোল্ল্যার সমর্থকের সংঘর্ষ বাধে। এতে উভয় গ্রুপের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। আহত হয় উভয় পক্ষের অন্তত ১৫ জন।
আহতদের উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল ও শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে ইউনুস মন্ডল, রাশেদ মন্ডল, অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদেরকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজে রেফার্ড করা হয়েছে।একই ঘটনায় সোমবার দুপুরে দুইদল গ্রাম বাসীর সংঘর্ষে আহত হন অন্তত আরও ১০ জন। সেসময়ও ১টি দোকান ও ২টি বাড়ি ভাঙচুর করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আবারো সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। শৈলকুপা থানার ওসি আমিনুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে মামলা নেওয়া হবে।