মনু ব্যারেজ তীরবর্তী স্থান থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন

প্রকাশিত : অক্টোবর ৮, ২০২২ , ১০:১৪ অপরাহ্ণ

মশাহিদ আহমদ, নিজস্ব প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: মৌলভীবাজারে অবৈধ ভাবে মনু নদীর মনু ব্যারেজ (সুইচ গেইট) সংলগ্ন স্থান থেকে ৫-৬টি নৌকা ও ড্রেজার মেশিনের মাধ্যমে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী। এতে সদর উপজেলার মনু নদীর তীরবর্তী স্থান রাষ্ট্রীয় স্থাপনা প্রধান মন্ত্রীর আশ্রয় প্রকল্প, বেড়ীবাঁধ, মনু ব্যারেজ, মসজিদ এবং হযরত শেখ শাহবুদ্দিন (র:) মাজারসহ ইসলামপুর, ধনশ্রী ও রায়শ্রী মৌজার স্থানীয় এলাকার বাসিন্দারা নদী গর্ভে বিলীন হওয়ার আশংকায় রয়েছে। দুই পাড়ের বাসিন্দাদের জান-মাল ও জীবন হুমকির সম্মুখীন। অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ করে মনু নদীকে ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য সিলেট বিভাগীয় কমিশনার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার শতাধিক ভুক্তভোগী। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা ও অবগতির জন্য (ডকেট নং- ৪৬৪৮,তারিখ ঃ ০৬/১০/২০২২ইং) মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক, জেলা পুলিশ সুপার, পানি উন্নয়ন বোর্ড, মৌলভীবাজার, জেলা বালু মহাল ব্যবস্থাপনা কমিটি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সহকারী কমিশনার ( ভূমি) ও পরিবেশ অধিদপ্তর, মৌলভীবাজার বরাবর অনুলিপি প্রেরণ করা হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে- প্রতিবছরই মনু নদীর অংশে বালু উত্তোলন করা হয়। গত ২৫/০৯/২০২২ইং থেকে ড্রেজার মেশিনের মাধ্যমে ব্যাপক ভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। বেপরোয়া ভাবে বালু উত্তোলনের কারণে মনু ব্যারেজ (সুইচ গেইট) সংলগ্ন স্থান কংক্রিটের ব্লক দিয়ে তা আটকানো হয়েছে। বর্তমানে তা যে কোন সময় ভেঙ্গে পড়তে পারে। বালু উত্তোলনকারীরা প্রভাবশালী হওয়ার কারণে কোন প্রশাসন অভিযোগ আমলে নিচ্ছেন না বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। এভাবে বালু উত্তোলন হতে থাকলে অচিরেই অনেকাংশ নদী গর্ভে বিলীন হওয়ার আশংকা করছেন তারা। হুমকির মুখে পড়েছে নদের জীব-বৈচিত্র্য, পরিবেশ ও তীরবর্তী এলাকা। ঝুঁকিতে রয়েছে একাধিক গ্রাম। পরিবেশবাদীরা বলেন, মনু নদ ছাড়াও জেলার অন্য নদী এবং ছড়াগুলো থেকে অবৈধ ও অ-পরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলন করায় জলজপ্রাণী ও জীব-বৈচিত্র্য হুমকির মুখে পড়েছে। এসব অবৈধ কর্মকাণ্ড বন্ধে প্রশাসন দ্রুত পদক্ষেপ নেবে, আমরা এমনটিই প্রত্যাশা করি।