একটি মহল আনসার ভিডিপি অফিসের বিরুদ্ধে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন

প্রকাশিত : অক্টোবর ১২, ২০২২ , ১০:৩৪ অপরাহ্ণ

মশাহিদ আহমদ, নিজস্ব প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: রাজনগর উপজেলার একজন কমান্ডার এর সাথে কথা বলে জানা যায়, এ বছর জেলা আনসার ভিডিপি কার্যালয়ের জেলা কমান্ড্যান্ট এর নির্দেশ ছিল, শত ভাগ হাজির করে আনসার ভিডিপি সদস্য বাছাই করতে হবে। ৫ অক্টোবর বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জন পর্যন্ত শতভাগ হাজিরা নিশ্চিত ছিল। কাউকে কোন গ্রুপ দেওয়া হয়নি। এ কারণে কিছু কিছু সদস্য ডিউটি না পেয়ে আনসার ভিডিপি অফিসের বিরুদ্ধে কথা বলে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন। আনসার নির্বাচন, পূজাসহ অন্যান্য উিউটি সঠিক ভাবে পালন করে সকল কিছু সাফল্য মণ্ডিত করে। এ বছর মৌলভীবাজারে শারদীয় দুর্গাপূজায় ১০০৬ টি পূজা মণ্ডপে ৪৮২২ জন আনসার ভিডিপি সদস্য নিয়োজিত ছিল। বাছাই কার্যক্রম স্বচ্ছতা ও নিয়ম অনুযায়ী করা হয়েছে। একটি মহল মিথ্যা অপবাদ ছড়াচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে জেলা আনসার ভিডিপি কার্যালয় থেকে জানানো হয়, বাছাই কার্যক্রমে যথাযথভাবে করা হয়েছে। টাকা পয়সা লেনদেন ও কোন দুর্নীতি হয়নি। “লাখ টাকার দুর্নীতি করে ৬দিনের চাকুরীসহ বিভিন্ন অপপ্রচার ও মিথ্যা অভিযোগে কথা শুনে তারা হতাশা ব্যক্ত করেন। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে শ্রী শ্রী দুর্গা কালীবাড়ী পূজা মন্ডপের সভাপতি বিপুল ভট্রাচার্য বলেন- দুর্গাপূজা সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে পালনের লক্ষ্যে ও আইন শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে আনসার ভিডিপি এর সদস্যরা সঠিক ভাবে মণ্ডপে নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করেছেন। এই মণ্ডপে কোন আনসার কম ছিলা না। শ্রী শ্রী শ্যাম সুন্দর মন্ডপের সাধারণ সম্পাদক শিবাশিষ পাল বলেন- ৬জন আনসার সদস্য সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করেছে। কোন আনসার কমতি ছিল না। উৎকোচ আদায় ও জনবল কম ছিল তা ভিত্তিহীন ও অপপ্রচার। এ খবরের সত্যতা পাওয়া যায় বিজয়া দশমী শেষে প্রত্যেক মন্ডপের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের সাথে কথা বলে। এ বিষয়ে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতি সম্পর্কে সরেজমিনে গেলে, সদর উপজেলার দল-নেত্রীর সাথে কথা বলে জানা যায়, তিনি কোন গ্রুপও দেননি, টাকা পয়সাও নেননি। অপরদিকে, সদরের ইমাত হোসেন ও ইমরান হোসেন নামে যাদের নাম বলা হয়েছে, তাদের ডিউটিতে কোন নাম নেই এবং এ নামে আনসার ভিডিপি‘র কোন সদস্যও নেই। লেনদেন দুরের কথা, এখানে মিথ্যা অপবাদ দেওয়া মূল কথা। কারো স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ের জন্য এসব অপপ্রচার চলছে। আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর যথাযথ উপস্থিতি ও আনসার ভিডিপি‘র ডিউটির সঠিকতার কারণে কোথাও কোন পূজা মণ্ডপে অপ্রীতিকর বা বিশৃঙ্খলা হয়নি। হরিজন যুব সংঘ মন্ডপের সাধারণ সম্পাদক গৌতম ভাস্কর্য বলেন, আনসার সদস্যরা সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করেছে। এখানে কোন আনসার সদস্য কম ছিল না। মহেশ্বরী পূজা মন্ডপের সভাপতি দেবাশিষ রায় বলেন- মণ্ডপে ৮জন আনসার সদস্য সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। উল্লেখ্য- মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন মণ্ডপে গত ১ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে পালনের লক্ষ্যে পূজা মণ্ডপ সমুহে আইন শৃঙ্খলা রক্ষার্থে মৌলভীবাজারে ১০০৬ টি পূজা মণ্ডপে ৪৮২২ জন আনসার ভিডিপি পুরুষ ও মহিলা মোতায়েন করা হয়। এবং ৫ অক্টোবর বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হয় এ উৎসব।