কালীগঞ্জে যুবককে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ

প্রকাশিত : অক্টোবর ২৫, ২০২২ , ৮:২১ পূর্বাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসী, নিজস্ব প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ফেসবুকে চিহ্নিত মাদক মামলার আসামীদের নিয়ে পোষ্ট দেওয়ায় কালীগঞ্জ উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও ফেসবুক এক্টিভিষ্ট অমিত শিকদার বিষুকে অপহরণের পর পিটিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কালীগঞ্জ শহরে এই ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত কালীগঞ্জের খয়েরতলা এলাকা থেকে অমিত শিকদারকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসাধীন আহত অমিত শিকদার বিষু জানান, রবিবার সকালে তিনি “আমি কালীগঞ্জের সন্তান” আইডি থেকে স্থানীয় এক প্রভাবশালী জনপ্রতিনিধির সঙ্গে দুই কাউন্সিলর মাদক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত রুবেল ও স্ত্রী হত্যার দায়ে সন্দিগ্ধ সজলের বিরুদ্ধে ছবিসহ পোষ্ট দেন। সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তার উপর হামলার আশংকা করে আরেকটি পোষ্ট দিয়ে ৫ বছরের শিশু সন্তান হৃদ্ধিক শিকদারকে নিয়ে বাজারে আসেন। অমিত শিকদারের ভাষ্যমতে, কালীগঞ্জ মুরগীহাটার কাছে আসতেই কাউন্সিলর রুবেলের নির্দেশে তার ছোট ভাই ইমরান ও পার্থসহ একাধিক যুবক তাকে জোর পূর্বক একটি গাড়িতে তুলে খয়েরতলা এলাকায় নিয়ে নির্যাতন করেন। খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে অপহরণকারীরা পালিয়ে যায়। কালীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের এক সময়ের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অমিত শিকদার অভিযোগ করেন, তিনি বিভিন্ন সময় কালীগঞ্জের অসঙ্গতি নিয়ে ফেসবুকে পোষ্ট দেওয়ার কারণে এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী, হত্যা মামলার আসামী, সমাজের অপরাধী, রাজাকার পুত্র ও ছিচকে চোরেরা তার উপর ক্ষুব্ধ ছিলেন। সেই জের ধরে তাকে অপহরণ করা হয় বলে তিনি দাবী করেন। কালীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আশরাফুল ইসলাম জানান, যে সময় ঘটনাটি ঘটে তখন কাউন্সিলর রুবেল তার অফিসে ছিল। এছাড়া সজল কাউন্সিলরের স্ত্রী বিয়োগের কারণে সে এমন কাজ করতে পারে না। তিনি বলেন, বিষুর সম্পত্তি নিয়ে পারিবারিক বিরোধ আছে। সে কারণেও এমন ঘটনা ঘটতে পারে বলে তিনি আশংকা করেন। বিষয়টি নিয়ে কালীগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রহিম মোল্লাকে একাধিকবার তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।