ঝিনাইদহ সাব রেজিস্টার ও তার স্বামীর সম্পদের হিসাব চেয়েছে দুদক

প্রকাশিত : নভেম্বর ৮, ২০২২ , ৫:৪০ অপরাহ্ণ

ঝিনাইদহ সাব রেজিস্টার আমিনা বেগম

হেলালী ফেরদৌসী, নিজস্ব প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: দুর্নীতির মাধ্যমে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার সাব-রেজিস্টার আমিনা বেগম ও তার স্বামীসহ তাদের ওপর নির্ভরশীল ব্যক্তিদের সম্পদের হিসাব বিবরণী দাখিল করতে চিঠি দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আমিনা বেগম ও তার পরিবারের সদস্যদের সম্পদের পরিমাণ জানতে দুদক থেকে চিঠি দেওয়া হয়েছে সদর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে। সোমবার (৭ নভেম্বর) সকাল ৯টার দিকে ঝিনাইদহ দু’দক সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক জাহিদ কালাম স্বাক্ষরিত একটি আদেশ সাব-রেজিস্টারের কাছে পাঠানো হয়। বিষয়টি জাহিদ কালাম নিশ্চিত করেছেন। দুদকের উপপরিচালক জাহিদ কালাম স্বাক্ষরিত এক চিঠি থেকে এমন তথ্য জানা যায়। এতে বলা হয়েছে, জ্ঞাত আয় বহির্ভূত স্বনামে বেনামে বিপুল পরিমাণ সম্পদ অর্জনের অভিযোগের প্রাথমিক অনুসন্ধানের ভিত্তিতে দুর্নীতি দমন কমিশন তার (আমিনা বেগম, সাব-রেজিস্টার, ঝিনাইদহ সদর) এবং তার স্বামী রুবাইয়াত আনোয়ার ও তার ওপর নির্ভরশীল ব্যক্তিরা তাদের স্থাবর-অস্থাবর সম্পদের হিসাব বিবরণ দাখিল করবেন। আমিনা বেগম চাকরিতে যোগদানের পর বিভিন্ন সময় দুর্নীতির মাধ্যমে তিনি এবং তার স্বামী রুবাইয়াত আনোয়ার ও তার ওপর নির্ভরশীল ব্যক্তিরা নামে বেনামে অর্জিত যাবতীয় স্থাবর/অস্থাবর সম্পত্তির মালিক হয়েছেন। তাই তাদের সবার সম্পত্তির হিসাব দাখিলের নির্দেশ দেয় দুদক। আগামী ২১ কার্যদিবসের মধ্যে হিসাব দাখিলে ব্যর্থ হলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।আদেশে আরও বলা হয়, মিথ্যা বিবরণী দাখিল করলে আইন মোতাবেক তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আমিনা বেগম মাগুরা জেলার মেয়ে। তিনি ঝিনাইদহ সদর সাব-রেজিস্টার এর দায়িত্ব পালন করছেন। দুদকের চিঠির বিষয়ে জানতে চাইলে সাব-রেজিস্টার আমিনা বেগম বলেন, আমার স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির খোঁজ নিতে চিঠি দিয়েছে দুদক। এটি দাপ্তরিক ব্যাপার। আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া আমি কিছু বলবো না।