শৈলকুপায় দলিল লেখকদের কর্মবিরতি

প্রকাশিত : নভেম্বর ২৮, ২০২২ , ৮:১৯ অপরাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসী, নিজস্ব প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: শৈলকুপা উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে সাব-রেজিস্টার ও দলিল লেখকদের পরস্পরবিরোধী অবস্থান, ঘুষ কেলেঙ্কারি,দলিল রেজিস্ট্রি জালিয়াতি এবং দলিল লেখককে সাসপেন্ড এর ঘটনায় দলিল লেখকদের কর্মবিরতি ধর্মঘট পালিত হয়েছে। এদিকে দলিল রেজিস্ট্রি না হওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। তবে সাব রেজিস্টার ইয়াসমিন শিকদার তার বিরুদ্ধে আনা সকল অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। উপজেলার মধ্যে দলিল কমিশনে অতিরিক্ত ফি দাবি, দলিল রেজিস্ট্রির সময় নানা অজুহাতে দলিল প্রতি অতিরিক্ত অর্থ আদায় ও বিলম্বে অফিসে আসাসহ বিভিন্ন অভিযোগে রোববার থেকে সাব রেজিস্টার ইয়াসমিন শিকদারের বিরুদ্ধে এ কর্ম বিরতি শুরু হয়েছে বলে জানান দলিল লেখকরা। সূত্রে জানা যায়, সাব-রেজিস্টার দলিল করার ক্ষেত্রে দীর্ঘ বছরের প্রচলিত নিয়ম পরিবর্তন করে অনৈতিক কর্মকাণ্ডে মৌখিক ও কাগুজে নিয়ম’ চালু করেন। আর এ কারণেই ক্ষুব্ধ হয়ে দলিল লেখকেরা প্রতিবাদস্বরূপ দলিল লেখা বন্ধ করে দেন। এভাবে সাব-রেজিস্টার ও দলিল লেখকদের পরস্পরবিরোধী অবস্থানের কারণে শৈলকুপা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে গত দুইদিন যাবৎ দলিল রেজিস্ট্রি বন্ধ রয়েছে। সাব-রেজিস্টার ও দলিল লেখকদের পরস্পরবিরোধী অবস্থানের মধ্যেই হঠাৎ করে রবিবার এবং সোমবার সাব-রেজিস্টার ইয়াসমিন শিকদারের বিরুদ্ধে ঘুষের অভিযোগ এনে দলিল লেখকেরা স্ববিরোধী বক্তব্য দিয়েছেন এবং কর্মবিরতি পালন করছেন। দলিল লেখকেরা সবাই সাব-রেজিস্টারের ঘুষ গ্রহণের বিষয়টি এক বাক্যে স্বীকার, তাঁরা এভাবে আর ঘুষ দেবেন না বলেও ঐক্যবদ্ধ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং তা বন্ধের ব্যাপারে ঐকমত্য পোষণ করেছেন ও কর্মবিরতির আন্দোলন চালাচ্ছেন। এ বিষয়ে শৈলকুপা দলিল লেখক সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কালিপ্রসাদ বিশ্বাস এবং আক্তারুজ্জামান খান মনির এর কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, সাব রেজিস্টার ইয়াসমিন শিকদার শৈলকুপায় যোগদানের পর থেকে দলিল লেখকরা বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। সমিতির নামে দলিল লেখকদের কর্মবিরতির বিষয়টি স্বীকার করেন। দলিল লেখক রবিউল ইসলাম সাবু অভিযোগ করেন, তার কাছ থেকে লিখিত একটি দলিলে ঢাকায় কমিশন করে রেজিস্টার করতে ৬০ হাজার টাকা নিয়েছেন সাব রেজিস্টার ইয়াসমিন শিকদার। অথচ এ কাজের সরকারি কমিশন ফি নয় হাজার টাকা বলে। এ বিষয়ে শৈলকুপা সাব-রেজিস্টার ইয়াসমিন শিকদার অনৈতিক সুবিধা, অতিরিক্ত অর্থ গ্রহণের অভিযোগ, ঘুষ গ্রহণের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন এবং তিনি জানান,দলিল লেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আক্তারুজ্জামান খান মনির অসাধু উপায়ে, কৌশলে প্রতারণা মুলকভাবে দলিল রেজিস্ট্রি করায় তিনি তাকে সাসপেন্ড করার কারনে তারা আমার বিরুদ্ধে এ কর্মবিরতি পালন করছে । সাব-রেজিস্টার ইয়াসমিন শিকদার আরো বলেন, দলিল লেখকরা তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করছেন এটা তাদের মনগড়া। তিনি সরকারি নিয়মের বাইরে কোনো দলিল রেজিস্ট্রি করেন না বলেও দাবি করেন।