ঠাকুরগাঁওয়ে বেসিক ট্রেড ইউনিয়নের সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ২৮, ২০২২ , ৯:৩১ অপরাহ্ণ

বিধান দাস, নিজস্ব প্রতিনিধি, ঠাকুরগাঁও, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ঠাকুরগাঁও জেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল মজিদ আপেলের নামে কালের কন্ঠ, বাংলাদেশ প্রতিদিনের অনলাইন ও নিউজ ২৪ টিভিতে “ঠাকুরগাঁওয়ে আপেল আতঙ্ক” শিরোনামে ভিত্তিহীন ও বানোয়াট খবর প্রকাশের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঠাকুরগাঁও জেলার সকল বেসিক ট্রেড ইউনিয়নের আয়োজনে বুধবার প্রেসক্লাব দ্বিতল ভবনের আধুনিক ভিআইপি হলরুমে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। জেলা মটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী বাটলা স্বাক্ষরিত লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি মো: আসাদুজ্জামান। তিনি বলেন, জেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল মজিদ আপেলের নামে উল্লেখিত পত্রিকা ও টিভি চ্যানেলে অসত্য সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে গত ১৮ অক্টোবর ঠাকুরগাঁও প্রেসক্লাব হলরুমে বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতি (বাজুস) এর জেলা কমিটির মতবিনিময় সভায় বাজুসের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগারওয়ালা ও বাজুসের উপদেষ্টা ও বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার বিজনেস এডিটর রুহল আমিন রাসেল উপস্থিত ছিলেন। উক্ত অনুষ্ঠানে জেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল মজিদ আপেলকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়। তবে মতবিনিময় সভার ব্যানারে আপেলের নাম উল্লেখ না থাকায় স্থানীয় স্বর্ণ ব্যবসায়ী ও স্বর্ণ কারিগররা উপস্থিত-জনের কাছে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা চান। এ সময় রুহুল আমিন রাসেল আপেলের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। পরে উপস্থিত লোকজনের চাপের মুখে তিনি উপস্থিত স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের নিকট ক্ষমা চান। এরই ফলশ্রুতিতে দেশের প্রতিষ্ঠিত সংবাদমাধ্যমকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে আপেলের বিরুদ্ধে এ জাতীয় সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি খয়রুল, জেলা ট্রাক ট্যাংকলরী পিক-আপ ও কাভার্ড ভ্যান মালিক সমিতির সভাপতি আসাদুজ্জামান, বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতি (বাজুস) এর ঠাকুরগাঁও জেলা সভাপতি রুহুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক খোকন কুমার রায় সহ জেলার বিভিন্ন ট্রেড ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ। প্রসঙ্গত, কালের কন্ঠ, বাংলাদেশ প্রতিদিনের অনলাইন ও নিউজ ২৪ টিভিতে ঠাকুরগাঁও জেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল মজিদ আপেলকে নিয়ে জেলা সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মান্নান হত্যা, আপেলের স্ত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু,জেলা বিএনপির সহ সভাপতি সুলতানুল ফেরদৌস চৌধুরীর-বাড়ি দখল, সদর উপজেলার আউলিয়াপুর ইউনিয়নের সাসলা পেয়ালায় জমি দখল এবং দেবীপুর ইউনিয়নের ৯ বিঘা জমি দখল সহ নানা দুর্নীতির বিষয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়।