তেঁতুলিয়া সীমান্তে বাংলাদেশী নাগরিকের হাত ভেঙে দেয়ার অভিযোগ

প্রকাশিত : জুলাই ৮, ২০২৪ , ৬:৫৭ অপরাহ্ণ

ডিজার হোসেন বাদশা, নিজস্ব প্রতিনিধি, পঞ্চগড়, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলায় সীমান্তে ভারতীয় সীমান্ত-রক্ষী বাহিনী বিএসএফের বিরুদ্ধে কিরণ (৪৫) নামে এক বাংলাদেশী নাগরিককে মারধর করে হাত ভেঙে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার (৮ জুলাই ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ) সকালে আহত কিরণকে বিজিবির মাধ্যমে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ উদ্ধার করে প্রথমে তেঁতুলিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে দুপুরে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। তবে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় চিকিৎসক তাকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছেন। আহত কিরণ নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লায় এলাকার মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে।
জানা গেছে, দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা ১১ জনের হিজরার একটি দলের সাথে রোববার রাতের আঁধারে কিরণও কাজের খোঁজে বাংলাবান্ধার ৭৩২ নাম্বার পিলার এলাকা দিয়ে ভারতে প্রবেশের চেষ্টা করেছিলেন। এসময় অন্যরা পালাতে সক্ষম হলেও বিএসএফের হাতে ধরা পড়ে কিরণ। এসময় ভারতের অভ্যন্তরে তাকে মারধর করে হাত ভেঙে দিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ফেলে দেয় বিএসএফ। পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. রহিমুল ইসলাম বলেন, ওই ব্যক্তিতে তেঁতুলিয়া থেকে সকালে পঞ্চগড়ে রেফার করা হয়েছে। তার হাত মুখসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতে চিহ্ন রয়েছে। তার হাতে ফ্যাকচার হতে পারে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রংপুরে রেফার করা হয়েছে। পঞ্চগড় ১৮ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে কর্নেল জিয়াউল হক বলেন, ওই ব্যক্তি অবৈধভাবে ভারতে অনুপ্রবেশ করার চেষ্টা করেছিলেন। বিজিবি বাংলাদেশের সীমান্ত থেকে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি ব্যবস্থা করেছে। অবৈধভাবে সীমানা পেরিয়ে ভারতে প্রবেশের কোন সুযোগ নেই। আমরা এ ঘটনায় থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছি। একই সাথে বিএসএফকে পতাকা বৈঠকের জন্য আহ্বান করা হয়েছে।

[wps_visitor_counter]