চাচিকে হত্যার ২৭ বছর পর যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত ভাতিজা গ্রেফতার

প্রকাশিত : জুলাই ৩১, ২০২২ , ৬:১৫ অপরাহ্ণ

ময়মনসিংহ ব্যুরো , ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ময়মনসিংহে অন্তঃসত্ত্বা চাচি মনোয়ারা বেগমকে হত্যার ২৭ বছর পর যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি সাইফুল ইসলাম ওরফে সাইফুলকে (৪৫) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৪। যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি সাইফুল ইসলাম ওরফে সাইফুল ফুলবাড়িয়া উপজেলার হুরবাড়ি এলাকার মৃত মিজান মিয়ার ছেলে। রোববার (৩১ জুলাই) দুপুরে র‌্যাব-১৪ এর কার্যালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এর আগে শনিবার (৩০ জুলাই) দিনগত রাত আড়াইটার দিকে ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকার দারুস সালাম থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ময়মনসিংহের র‌্যাব-১৪ এর কোম্পানি অধিনায়ক মেজর আখের মুহম্মদ জয় এ বিষয়ে বলেন, ‘ফুলবাড়ীয়া উপজেলার হুরবাড়ি গ্রামের মোঃ আব্দুল আউয়ালের সঙ্গে মনোয়ারা আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের পর মনোয়ারাকে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন করতেন স্বামী। বিয়ের আনুমানিক দুই বছর পর অন্তঃসত্ত্বা হন মনোয়ারা বেগম। পরবর্তীতে ১৯৯৪ সালের ১১ ডিসেম্বর রাতে যৌতুকের দাবিতে আব্দুল আউয়াল, তার দুই বোন শামছুন্নাহার, হাফেজা খাতুন এবং আউয়ালের ভাতিজা সাইফুল ইসলাম মিলে পিটিয়ে মনোয়ারাকে হত্যা করেন।’ র‌্যাবের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘হত্যার ঘটনা ধামাচাপা দিতে মনোয়ারার মুখে বিষ ঢেলে দিয়ে আত্মহত্যা বলে প্রচার করা হয়। এ ঘটনার পর নিহত মনোয়ারার ভাই মোঃ শহিদুল্লাহ বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেন। পরে ওই মামলায় ২০০৪ সালের জানুয়ারি মাসে সাইফুলকে যাবজ্জীবন সাজা দেন আদালত। তবে হত্যাকাণ্ডের পর থেকেই পলাতক ছিলেন তিনি।’