নাচোলে গ্রামীণ রাস্তা সংস্কার না করেই টাকা উত্তোলনের অভিযোগ

প্রকাশিত : আগস্ট ৩, ২০২২ , ৭:৪০ অপরাহ্ণ

মোঃ আশরাফুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল গ্রামীণ রাস্তা সংস্কারে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। রাস্তার কাজ সম্পন্ন না করেই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কে বিল পরিশোধ করা হয়েছে। এলাকাবাসীর দাবি তদন্ত করে উক্ত রাস্তার সংস্কার কাজ সঠিক ভাবে সম্পন্ন করার। অনুসন্ধানে জানা গেছে, ‘গ্রামীণ মাটির রাস্তা সমূহ টেকসই করনের লক্ষ্যে হেরিং বোন বন্ড(এইচবিবি) করণ(২য় পর্যায়)’প্রকল্পের আওতায় নাচোল ইউনিয়নের বাগড়া মোড় থেকে খেওয়াপাড়া ভায়া বিশালপুর জিপিএস সড়ক ১কিলোমিটার রাস্তা সংস্কারে ৪৯ লক্ষ ৮২ হাজার টাকা ব্যয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর এর আওতায় গত ১২ মে ২২ইং উক্ত রাস্তা সংস্কারের কাজ পায় রহনপুরের ঠিকাদার অহিদুজ্জামান।
পরে ঠিকাদার অহিদুজ্জামান এর কাছে থেকে ঐ রাস্তা সংস্কারের কাজ কিনে নেন নাচোলের বিএনপি নেতা আজিম ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের আত্মীয় কামরুল। প্রায় ১ কিলোমিটার রাস্তা সংস্কারে আজিম ও কামরুল বালু ছাড়াই ১০ দিনের মধ্যে ২ নাম্বার ইট দিয়ে হেরিং বন্ড এর কাজ যেনতেন ভাবে সম্পন্ন করে। কাজের মান না দেখে অপর দিকে ঐ রাস্তা সংস্কারের বিল তড়িঘড়ি করে বিল প্রদান করেছে নাচোল উপজেলা ত্রাণ কার্যালয়। বিশালপুর খেয়াপাড়া এলাকার সাইদুর রহমান জানান,উক্ত কাঁচা রাস্তাটি সংস্কারে আমরা এলাকাবাসী চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের সাংসদ আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম কে অনেক অনুরোধ করি বরাদ্ধের জন্য। পরে তিনি অবহেলিত রাস্তাটি সংস্কার কাজের উদ্বোধন করে। ঠিকাদার উক্ত রাস্তায় বালি ছাড়াই যেনতেন ভাবে ২ নাম্বার ইট দিয়ে রাস্তা এইচবিবি করণ করেন। এমনকি রাস্তার দু পাশে কোন ধরনের মাটি না দিয়ে কাজ শেষ করেন। বর্তমানে রাস্তার ইট এমনিতেই উঠে যাচ্ছে।তদন্ত করে সঠিক ভাবে রাস্তা সংস্কারের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবি জানান তিনি।
বিশালপুর খেয়াপাড়া এলাকার অপর এক ব্যক্তি আমির হোসেন জানান,আমাদের এই রাস্তা সংস্কারে বালি না দেওয়ার কারনে ইট উঠে যাচ্ছে। এই রাস্তায় যে বরাদ্ধ দেওয়া হয়েছে তা সঠিক ভাবে ব্যয় করলে রাস্তা পাকা হয়ে যাবে। রাস্তা সংস্কার এর নামে লুটপাট করা হয়েছে অর্থ। এবিষয়ে ঠিকাদার আজিমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সঠিক ভাবেই রাস্তা সংস্কার করা হয়েছে। এ বিষয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মৌদুদ আলম খাঁ এর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, রাস্তাটি পরিদর্শনে গিয়েছিলাম, কিছু অনিয়ম রয়েছে, এক সপ্তাহের মধ্যে ওই রাস্তার কাজ সঠিক ভাবে সংস্কার করা হবে বলে জানান।