মৌলভীবাজার জেলা শিক্ষা অফিসে সরকারী নীতিমালা অমান্য

প্রকাশিত : আগস্ট ৩১, ২০২২ , ৯:৫৮ অপরাহ্ণ

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: মৌলভীবাজারে জেলা শিক্ষা অফিসের ভিতরে কোর্ট রোডে অবস্থিত জেলা শিক্ষা ভবন (২য় তলা, অফিস রুমে) দীর্ঘ দিন যাবত (২০০৪-২০২২ইং পর্যন্ত) সরকারী বাসা বরাদ্ধ নীতিমালা অমান্য করে গাড়ী চালক আবুল বাশার স্ব-পরিবারে বসবাস করার অভিযোগ উঠেছে। ভেতরে ভেতরে চাপা ক্ষোভ থাকলেও প্রকাশ্যে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না কেউ। তিনি পরিবারের ৫সদস্য ও কাজের লোকসহ স্টাফ রুমে ৬জন নিয়ে রাত্রিযাপন করেন। রান্না‘র কাজে গ্যাস, বিদ্যুৎ, রুমে থাকা এসিসহ বিভিন্ন সুবিধা ভোগ করে আসছেন। মূল বেতন এর মধ্যে বাড়ী ভাড়া বাবত গ্রহণ করেন, ৯৯৪০টাকা। দীর্ঘদিন যাবত সরকারী অফিসে বসবাস করেও বাড়ী ভাড়া বাবত সর্বসাকুল্য প্রায় ২১ লক্ষ টাকা উত্তোলন করছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, একই ভাবে মাষ্টাররুলে কর্মরত গাড়ী চালক মোঃ রফিকুল ইসলাম স্ব-পরিবারে গাড়ী গ্যারেজের রুমে এবং ৩য় তলায় শিক্ষা অফিসের ডাটা এন্ট্রি অপারেটর সাইফুল ইসলাম ৫সদস্য নিয়ে বসবাস করছেন। অফিস সহায়ক মোঃ আবুল হোসেন ২য় তলায় একটি অফিস রুমের একটি কক্ষে বসবাস করেন। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ ফজলুর রহমান সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমি একা নিয়ম একদিনেই বদলাতে পারবো না। গাড়ী চালক আবুল বাশার ও ডাটা এন্ট্রি অপারেটর সাইফুল ইসলাম পরিবার নিয়ে বসবাস করেন। জেলা শিক্ষা প্রকৌশল অফিসের একজন পরিবার নিয়ে অফিসে বসবাস করেন। সরকারী অফিসে বসবাস করেও ২০০৪ সাল থেকে বাড়ী ভাড়া বাবত সরকারী টাকা উত্তোলন কিভাবে করছেন এবং প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিতে পারেননি।