কোম্পানীগঞ্জে গরম পানিতে ফুফাতো ভাইকে ঝলসে দিয়েছে মামাতে ভাই বোন

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২২ , ১১:৩৩ অপরাহ্ণ

ইয়াকুব নবী ইমন, নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে গরম পানি ঢেলে এক শিশুকে ঝলসে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তার মামাতো ভাই-বোনের বিরুদ্ধে। ঘটনার একদিন পর আহত শিশুকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউট হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঝলসে যাওয়া শিশুর নাম নজরুল ইসলাম (১২) সে উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার ৫নম্বর ওয়ার্ডের শুটকি বেপারী বাড়ির মো.ইউছুফ ওরফে হারুনের ছেলে। বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার ৫নম্বর ওয়ার্ডের শুটকি বেপারী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। স্থানীয়রা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে শুটকি বেপারী বাড়ির হারুন ও সেলিমের পরিবারের মধ্যে পারিবারিক কলহ চলছিল। বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধের জের ধরে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে একই বাড়ির সেলিমের ছেলে মিশু ও মেয়ে নুপুর গরম পানি মেরে ফুফাতো ভাই নজরুলকে ঝলসে দেয়। এতে তার ছেলের শরীরের গোপনাঙ্গসহ বেশকিছু অংশ গরম পানিতে ঝলসে গেছে। ভুক্তভোগী শিশুর পিতা মো.ইউছুফ ওরফে হারুন অভিযোগ করে বলেন, গতকাল ঘটনার পরপরই তার স্ত্রী আফরোজের নেছা বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। কিন্তু পুলিশ শুক্রবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত মামলা রেকর্ড করেনি। উল্টো এসআই সোহেল মাহমুদ আমাকে বলে, আমি শ্বশুর বাড়িতে থাকি আমার কোন কথা নেই। আমি যেন সবার সাথে মিলেমিশে থাকি। পুলিশ নানা তালবাহানা করে মামলা রুজু করছেনা। এ বিষয়ে জানতে চাইলে কোম্পানীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সোহেল মাহমুদ বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগী পরিবার থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। আহত শিশুকে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। পরবর্তীতে এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.সাদেকুর রহমান লিখিত অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।