হাতিয়াতে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে দুই জলদস্যু নিহত: ৫ ডাকাত আটক

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২ , ৯:৫৯ অপরাহ্ণ

ইয়াকুব নবী ইমন, নিজস্ব প্রতিনিধি, নোয়াখালী, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়া থেকে আগ্নেয়াস্ত্রসহ ৫ডাকাতকে আটক করেছে কোস্টগার্ড। একই সঙ্গে কবির ও সাহারাজ নামে দুই জলদস্যু মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। কোস্টগার্ড ঘটনাস্থল থেকে ৩টি একনলা বন্দুক, দুই রাউন্ড তাজা গোলা ও কিছু দেশীয় উদ্ধার করা হয়। নিহত ডাকাতরা হলো উপজেলার মেঘনা নদী সংলগ্ন চর ঘাসিয়ার বাসিন্দা এবং ডাকাত ফখরুল গ্রুপের সদস্য কবির ও সাহারাজ। অপরদিকে, আটককৃত ডাকাতরা হলো লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলায় বাসিন্দা জিন্টু (৩৬),হারুন (৩৭) লিটন (৩৫) মোশারফ (৩৬) আজিম বেপারী (২৭)। বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেল সোয়া ৩টার দিকে ৫ ডাকাত আটকের বিষয়টি এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন কোস্ট গার্ড সদর দপ্তরের মিডিয়া কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কমান্ডার খন্দকার মুনিফ তকি। তবে দুই ডাকাত নিহতের বিষয়ে ওই বিজ্ঞপ্তিতে কিছু বলা হয়নি। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, নোয়াখালী জেলার মেঘনা নদী সংলগ্ন হাতিয়া উপজেলার ঘাসিয়া চর একটি অপরাধ প্রবণ অঞ্চল। ওই চরে একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যে ডাকাত খোকন গ্রুপ এবং ডাকাত ফোকরা বাহিনী বুধবার দিনগত রাত ৩টার দিকে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এমন খবর পেয়ে কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের তিনটি অভিযানিক দল ঘাসিয়ার চরে অভিযান চালায়। ডাকাত দল কোস্টগার্ডের উপস্থিতি টের পেয়ে বিচ্ছিন্ন ভাবে নৌকা যোগে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। ওই সময় কোস্টগার্ড তাদের ধাওয়া করে লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি উপজেলার মেঘনা নদীর চর আবদুল্লাহ থেকে ৩টি একনলা বন্দুক,দুই রাউন্ড তাজা গোলা,৬টি রামদা ও ৫টি বল্লমসহ ডাকাত খোকন বাহিনীর ৫সদস্যকে আটক করে। পরে জব্দ-কৃত অস্ত্রসহ ডাকাতদের হাতিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আগে চরের নিয়ন্ত্রণ ছিল ডাকাত খোকনের হাতে। একপর্যায়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হয় সে। তারপর চর এলাকা নতুন করে নিয়ন্ত্রণ নেয় তার ভাই ফখরুল। কয়েক দিন আগে খোকন জামিন এসে আবার চরের নিয়ন্ত্রণ পেতে মরিয়া হয়ে উঠে। একপর্যায়ে আধিপত্য বিস্তার কে কেন্দ্র করে ডাকাত ফখরুলও খোকন বাহিনীর মধ্যে বুধবার দিনগত রাতে সংঘর্ষে দুই জন নিহত হয়। নিহত দুই জন ডাকাত ফখরুল গ্রুপের সদস্য। এ বিষয়ে জানতে চাইলে হাতিয়া কোস্টগার্ডের মিডিয়া কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট সাফিউল কিঞ্জল বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে অভিযান চালিয়ে ৫ডাকাত কে আটক করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে চলে আসার পর স্থানীয় সূত্র বলছে ওই ঘটনায় দুই ডাকাত নিহত হয়েছে। তবে আমরা ঘটনাস্থলে থাকাকালীন দুই ডাকাত নিহত হওয়ার কোন আলামত দেখতে পাইনি। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সংঘর্ষে দুই জন নিহত হয়েছে বলে শুনেছেন।