ঠাকুরগাঁওয়ে ৫ বছরের শিশুকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মামলা

প্রকাশিত : অক্টোবর ৮, ২০২২ , ৯:০৪ অপরাহ্ণ

বিধান দাস, নিজস্ব প্রতিনিধি, ঠাকুরগাঁও, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ১৬ নং নারগুন ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি হুমায়ুন কবিরের বিরুদ্ধে প্রতিবেশী পাঁচ বছরের এক শিশুকে যৌন নিপীড়ন করার অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে শুক্রবার (৭ অক্টোবর) সন্ধায় যৌন নিপীড়নের শিকার ওই শিশুর বাবা ঠাকুরগাঁও সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এদিকে শুক্রবার রাতেই এলাকাবাসী ছোট খোচাবাড়ি এলাকায় ঠাকুরগাঁও-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করে হুমায়ুনের উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করে। সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করায় সড়কে যানজট সৃষ্টি হলে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি কামাল হোসেন এসে আসামীকে দ্রুত গ্রেফতার করার আশ্বাস দিয়ে বিক্ষোভ-কারিদের শান্ত করে রাস্তা ফাঁকা করেন। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী পরিবার জানান, গত ১৫ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টার দিকে শিশুটিকে অভিযুক্ত হুমায়ন কবির খাবারের লোভ দেখিয়ে তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে গিয়ে ঘরের দরজা জানালা বন্ধ করে ও শিশুটির মুখ চেপে ধরে যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণের চেষ্টা করে। শিশুটি তার মাকে বিষয়টি জানায়। কিন্তু এ ঘটনাটির কথা অভিযুক্তের নানা ধরণের হুমকি-ধমকির কারণে গোপন রেখেছিলেন শিশুটির মা। পরে যৌন নিপীড়নের ফলে অসুস্থ হয়ে দিনদিন শিশুটির শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকলে তাকে গত ৪ অক্টোবর দুপুরে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় এবং ডাক্তারের মাধ্যমেই বিষয়টি অবগত হন শিশুটির বাবা ও স্বজনরা। শিশুটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালের গাইনী বিভাগের জুনিয়র কনসালটেন্ট ডা: সালমা সুলতানা জানান, এটি রেপ না হলেও কিন্তু এটি সেক্সচুয়াল অ্যাসল্ট অর্থাৎ যৌন-নিপীড়ন। তারা চাইলে আইনের আশ্রয় নিতে পারেন। হুমায়ুন এর আগেও এ ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটিয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। আর যাতে নারী ও শিশুদের সাথে এ ধরণের ন্যক্কারজনক ঘটনা কেউ ঘটাতে না পারে তাই সুষ্ঠু তদন্ত করে তার কঠোর শাস্তি দাবি করেন স্থানীয়রা ও ভুক্তভোগী পরিবারটি। অভিযুক্ত হুমায়ুন কবিরের কাছে শিশুটিকে যৌন নিপীড়ন করার কথা জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ‘প্রায় ৩ মাস আগে তার ঘরে শিশুটি একাই রিমোট নিয়ে টিভি দেখছিল। তখন তাকে তিনি টিভি দেখতে নিষেধ করেন। কিন্তু শিশুটি টিভি বন্ধ করার জন্য রিমোট দিতে না চাইলে রিমোট কেড়ে নেওয়ার সময় শিশুটি হাত পা ছোড়া ছুড়ি করে। এ সময় শিশুটির শরীরে কোথায় তার হাত লেগেছে তা তার জানা নেই। এছাড়াও ভুক্তভোগী পরিবারকে নানা ধরণের হুমকি দেওয়ার কথা অস্বীকার করে তিনি আরও বলেন, গত ১৫ দিনের মধ্যে দুই বার ওই শিশুর পরিবারের সাথে তার ঝগড়া হয়েছিল। তখন সেই মহিলাকে থ্রেট করেছিলেন ও মারতেও উদ্ধত হয়েছিলেন। তার জের ধরে এই হয়রানি করছেন তাকে বলে জানান তিনি। ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন বলেন, যৌন হয়রানি করার অভিযোগে শিশুটির বাবা শুক্রবার বিকেলে থানায় একটি এজাহার দিয়েছেন। এজাহারের প্রেক্ষিতে আমরা তাৎক্ষণিক মামলা নিয়েছি ও আসামীকে গ্রেফতার করার চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।