মৌলভীবাজারে সুদের কারবারির বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশ

প্রকাশিত : নভেম্বর ১০, ২০২২ , ৫:৫৫ অপরাহ্ণ

মশাহিদ আহমদ, নিজস্ব প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: মৌলভীবাজার চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মিথ্যা তথ্য দিয়ে মামলা দায়ের ও প্রতিপক্ষকে হয়রানির অভিযোগে মামলার বাদী সুন্দর আলীর বিরুদ্ধে মামলা করার জন্য মৌলভীবাজার মডেল থানাকে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। বুধবার ৯ নভেম্বর বিজ্ঞ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহম্মদ আলী আহসান এই আদেশ দেন। আদালত সূত্র জানিয়েছে, ১৫/০৬/২০২১খ্রি. সি.আর ৪৭৫/২০২২ (সদর) বর্ণিত মামলার বাদীর কাছ থেকে নিতেশ দাশ ও গীতারানী দাশ তাদের মেয়ের বিবাহ উপলক্ষে সুন্দর আলীর নিকট হতে চার লক্ষ টাকা কর্জ নেন। পরবর্তীতে টাকা পরিশোধ করতে না পারায় বর্ণিত আসামীদের বিরুদ্ধে সুন্দর আলী বাদী হয়ে গত ২৭/০৬/২০২২খ্রি. তারিখ ১নং আমল-গ্রহণকারী আদালত, মৌলভীবাজার সদর (সি.আর- ৪৭৫/২০২২ (সদর) The Penal Code, ১৮৬০ এর ৪০৬/৪২০/৫০৬ (দ্বিতীয় অংশ) ধারায় মামলা দায়ের করলে আদালত আসামীদের প্রতি সমন ইস্যু করে এবং ৯ নভেম্বর মামলার তারিখ ধার্য করেন। ধার্য তারিখে আসামীগণ বিজ্ঞ আইনজীবী জামাল আহমদ এর মাধ্যমে জামিনের আবেদন করেন। জামিন শুনানীর সময় আদালতে উপস্থিত আসামী পক্ষের বিজ্ঞ আইনজীবী ও স্থানীয় ইউ পি সদস্য মোঃ ফজলুর রহমান এর মাধ্যমে আদালত অবগত হন যে, সুন্দর আলীর নিকট হতে আসামীগণ চিকিৎসা সংক্রান্তে টাকার প্রয়োজনে মাত্র ২৫০০০/ (পঁচিশ হাজার) টাকা কর্জ করেন। পরবর্তীতে বিজ্ঞ আদালত স্থানীয় ইউ পি সদস্য মোঃ ফজলুর রহমান ও আসামী নিতেশ দাশ এর জবানবন্দি গ্রহণ করলে তারা আদালত কে অবহিত করেন যে, মামলার আর্জিতে উল্লেখিত ৪,০০,০০০ টাকা কর্জ দেন নাই। সুন্দর আলী মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে জাল চুক্তিপত্র সম্পাদনের মাধ্যমে উক্ত মামলা দায়ের করেন এবং বাদী সুন্দর আলী একজন প্রখ্যাত দাদন ব্যবসায়ী হিসেবে এলাকায় পরিচিত। স্থানীয় অনেক মানুষকে সুদে টাকা প্রদান করেন ও পরবর্তীতে চক্রবৃদ্ধিতে সুদের টাকা আদায়ের জন্য বিভিন্ন প্রকার নির্যাতন করেন। ওই অবৈধ ও অ-নিবন্ধিত সুদের কারবারিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার বিষয়ে উচ্চ আদালতের নির্দেশনা রয়েছে। এমতাবস্থায়, সংশ্লিষ্ট আদালতের বিচারক বিজ্ঞ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহম্মদ আলী আহসান অবহিত হয়ে বাদী সুন্দর আলীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মৌলভীবাজার মডেল থানাকে নির্দেশ দিয়ে বাদী সুন্দর আলীকে কোর্ট কাস্টডিতে প্রেরণ করেন এবং আসামীদের জামিনের আদেশ দেন। শুনানীর সময় বিজ্ঞ বিচারক আদালতে উপস্থিত মৌলভীবাজার জেলা বারের বিজ্ঞ সাধারণ সম্পাদক মোঃ বদরুল হোসেন ইকবালসহ উপস্থিত আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে বলেন, এ দেশের অধিকাংশ মানুষই অসহায় দারিদ্র-পীড়িত। গরীব, অসহায় ও নির্যাতিত সুবিধা-বঞ্চিত মানুষদের পাশে থেকে আইনি সেবা প্রদানের জন্য অনুরোধ করেন এবং মানুষ যেন মিথ্যা মামলায় হয়রানী না হয় সেজন্য মামলা দায়েরের ক্ষেত্রে বিজ্ঞ আইনজীবীদের আরও সতর্ক থাকার নির্দেশনা প্রদান করেন। মৌলভীবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও সাবেক পিপি এ. এস. এম. আজাদুর রহমান বলেন, অ-নিবন্ধিত সুদের কারবারির বিরুদ্ধে উক্ত ব্যতিক্রমী ও যুগান্তকারী আদেশের ফলে সমাজে অবৈধ সুদের কারবার হ্রাস পাবে। মৌলভীবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ বদরুল হোসেন ইকবাল বলেন, আদালত যে দৃষ্টান্তমূলক আদেশ দিয়েছেন যার ফলে সমাজে নিরীহ ও নির্যাতিত মানুষের অবৈধ ও অ-নিবন্ধিত সুদের কারবারিদের করাল গ্রাস থেকে মুক্তি পাবার বিষয়ে আশার সঞ্চার হয়েছে। পাবলিক প্রসিকিউটর রাধাপদ দেব সজল বলেন, সুদ মানুষকে প্রকৃত অর্থনৈতিক কার্যকলাপ থেকে ফিরিয়ে রাখে। আদালতের উক্তরূপ আদেশের ফলে সমাজে অবৈধ সুদের কারবারির সংখ্যা হ্রাস পাবে ।