হালুয়াঘাটে গণ ধর্ষণের শিকার কিশোরীর বিষপানে আত্মহত্যা

প্রকাশিত : জানুয়ারি ২৫, ২০২৩ , ৬:৫২ অপরাহ্ণ

ময়মনসিংহ ব্যুরো, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ময়মনসিংহ জেলার হালুয়াঘাট উপজেলার ১ নম্বর ভূবনকুড়া ইউনিয়নের কুমারগাতি গ্রামের ১৩ বছর বয়সের এক কিশোরী গণ-ধর্ষণের শিকার হয়ে বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। নিহত কিশোরী জেলার হালুয়াঘাট উপজেলার ১ নম্বর ভূবনকুড়া ইউনিয়নের কুমারগাতি গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন। আর প্রধান অভিযুক্ত শিমুল একই উপজেলার কুমারগাতি গ্রামের চানু মিয়ার ছেলে। নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) সকালে হালুয়াঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিষপান করা ওই কিশোরীকে চিকিৎসার জন্য আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক কিশোরীর আশঙ্কাজনক অবস্থা দেখে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। পরে মমেক হাসপাতালে নেয়ার পথে রাস্তায় কিশোরীর মৃত্যু হয়। ঘটনার শিকার কিশোরীর মা জানায়, গত তিন দিন আগে একই উপজেলার পাশের জয়রামকুড়া গ্রামের এক বাড়িতে দুই দিন অবরুদ্ধ রেখে প্রতিবেশী শিমুল ও তার সহযোগীরা আমার মেয়েকে গণ ধর্ষণ করে রাস্তায় ফেলে রেখে যায়। পরে স্থানীয় জয়রামকুড়া হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে মেয়েকে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসি। এ ঘটনার পর মেয়ের পরিবার কর্তৃক ছেলের পরিবারকে বিয়ের জন্য বললে তারা রাজি না হওয়ায় ওই কিশোরী বিষপানে আত্মহত্যা করে বলে জানায়। নিহত কিশোরীর মা
আরও জানান, অভিযুক্ত শিমুল কুমারগাতি গ্রামের চানু মিয়ার ছেলে। এ বিষয়ে হালুয়াঘাট থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত একজনকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে হালুয়াঘাট থানা পুলিশ। হালুয়াঘাট থানার এসআই হাবিবুর রহমান এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।