নওগাঁর পত্নীতলায় বিদ্যালয়ের সভাপতির অপসারণ দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত : অক্টোবর ২৪, ২০২২ , ৫:৩১ অপরাহ্ণ

আলহাজ্ব বুলবুল চৌধুরী, নিজস্ব প্রতিনিধি, নওগাঁ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: নওগাঁর পত্নীতলায় উপজেলার উত্তর রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবুল কাশেমের অপসারণের দাবিতে সোমবার শিক্ষার্থীদের অভিভাবকসহ এলাকাবাসীরা মানববন্ধন করেছেন। ইতিপূর্বেও ঐ সভাপতির অপসারণের দাবিতে ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবকবৃন্দ ও এলাকাবাসী স্কুল চত্বর সহ এলাকায় পোস্টার লাগানোসহ প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তরে অভিযোগ দায়ের করলেও এ পর্যন্ত তিনি সভাপতি বহাল তবিলতে থাকায় তার দ্রুত অপসরণের দাবিতে আবারো মানববন্ধন করেছে ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবকবৃন্দ ও এলাকাবাসী। এদিকে একটি পক্ষ বলছে সভাপতির মান ক্ষুণ্ণ করতেই এই অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। অপরপক্ষ বলছে এখনো একজন মাদক ব্যবসায়ী বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমটির সভাপতির পদে থাকলে শিক্ষার্থীদের পড়াশুনার মান ক্ষুণ্ণ হবে তাই অতিদ্রুত তার অপসারণ দাবি জানান তারা। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। মানববন্ধনে ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবকবৃন্দ ও এলাকাবাসীর পক্ষে আব্দুর রাজ্জাক, আলম হোসেন, হাবিবুর রহমান, দাউদ আলীরা জানান, উত্তর রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের বর্তমান ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবুল কাশেম দীর্ঘদিন যাবৎ মাদকের সাথে জড়িত এবং একজন মাদক ব্যবসায়ী। ২০১১ সালে মাদক সহ পার্শ্ববর্তী সাপাহার উপজেলায় আটকের পর সাপাহার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাদকদ্রব্য আইনে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে তার সাজা প্রদান করে জেল-হাজতে প্রেরণ করেন। পরবর্তীতে ২০১৭ সালে ঘোলা দিঘী হতে মাদক বহন করে বগুড়া যাওয়ার পথে পুলিশ হাতে আটক হন আবুল কাশেম। পরে তার বিরুদ্ধে একটি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয় এবং বিষয়টি সেসময় বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। বর্তমানে তার নামে ওই মামলাটি চলমান রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে জাতীর মেরুদন্ড- বলা হয়ে থাকে কিন্তু এমন একজন মাদক ব্যবসায়ী কে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত করে জাতীর মেরুদণ্ডকে ভেঙে ফেলা হচ্ছে। এতে করে স্কুলটির শিক্ষার্থীদের উপর বিরূপ প্রভাব পড়ছে। এজন্য আমরা এই মাদক ব্যবসায়ীকে বিদ্যালয়ের সভাপতির পদ থেকে অপসারণ দাবী জানাচ্ছি। ইতিপূর্বেও ঐ সভাপতির অপসারণের দাবিতে প্রশাসন সহ সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তরে অভিযোগ দায়ের করেও অদ্যাবধি তাকে অপসারণ করা হয়নি বরং উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোশাহাক আলী উক্ত সভাপতির পক্ষ হয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছে। তবে, অন্য একটি পক্ষ মনে করেন বিদ্যালয় ও সভাপতির মান ক্ষুণ্ণ করতে এধরনের অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। জানা গেছে, চলতি বছরের ২৩ এপ্রিল আকস্মিক ভাবে উত্তর রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পদে আবুল কাশেম নির্বাচিত হন। এরপর থেকেই এলাকায় মাদক ব্যবসায়ীকে সভাপতি করা নিয়ে নানা গুঞ্জন সহ চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। এ বিষয়ে উত্তর রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) কুমুদ চন্দ্র বর্মন এর সাথে যোগাযোগ করা হলে, অত্র বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবুল কাশেমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ দায়ের সহ মানববন্ধনের কথা শিকার করলেও, সভাপতির বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ গুলো কৌশলে এড়িয়ে যান তিনি। অপরদিকে উত্তর রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবুল কাশেমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ গুলো সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে জানান। তিনি বলেন যারা আজকে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন তারাই ইতোপূর্বে উক্ত ম্যানেজিং কমিটিতে আমাকে এনেছেন। এবিষয়ে পত্নীতলা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোশাহাক আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, উক্ত বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবুল কাশেমের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমাকে তদন্ত ভার দিলেও, উক্ত বিষয়ে মহামান্য আদালতে মামলা দায়েরের কারণে আমি উক্ত তদন্ত স্থগিত করেছে। বিষয়টি এখন মহামান্য আদালতের বিচার্য বিষয়।