শিক্ষকদের প্রত্যাশা পূরণে সরকার আন্তরিক

প্রকাশিত : অক্টোবর ২৭, ২০২২ , ১০:৩৬ অপরাহ্ণ

শিক্ষামন্ত্রী ডা.দীপু মনি, সংগৃহীত চিত্র।

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: শিক্ষামন্ত্রী ডা.দীপু মনি বলেছেন, শিক্ষকদের প্রত্যাশা পূরণে সরকার আন্তরিক। সরকারের যে সীমাবদ্ধতা আছে সেগুলো কাটিয়ে উঠতে হবে। শিক্ষকের আর্থিক, সামাজিক নিরাপত্তা ও সম্মানের ব্যবস্থা করতে হবে। অবকাঠামো উন্নয়ন যেমন জরুরি তার চেয়ে বেশি জরুরি শিক্ষার পরিবেশ তৈরি করা। শিক্ষকের মনে যদি প্রশান্তি থাকে, শিক্ষকের মনে যদি উৎসাহ থাকে তাহলে শিক্ষার পরিবেশ সত্যিই যথার্থ হয়ে উঠবে। বৃহস্পতিবার রাজধানীর ওসমানী মিলনায়তনে শিক্ষক দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোঃ আমিনুল ইসলাম। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, একটি সুন্দর সমাজ ও জাতি গঠনে শিক্ষকের ভূমিকা অপরিসীম। সারা জীবনের জন্য যিনি আমাদের গঠন করে দেন তিনি আমাদের শিক্ষক। আমাদের মানুষ হতে শেখান, দৃষ্টিভঙ্গি তৈরি করে দেন, আমাদের পুরো মনটাকে তৈরি করে দেন, আমাদের মধ্যে স্বপ্ন জাগিয়ে দেন এবং সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে নিয়ে যান। আমাদের পুরো জীবনটাতে তাদের অনন্য সাধারণ ভূমিকা রয়েছে।
মন্ত্রী বলেন, শিক্ষকের সততা, নিষ্ঠা, আন্তরিকতা, সহমর্মিতা এগুলো ভীষণ জরুরি। আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা থেকে আপদগুলো দূর করার চেষ্টা করছি। তার মধ্যে একটি প্রশ্ন ফাঁস-সেটা বন্ধ হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা দেশের সব শিক্ষককে প্রশিক্ষণের মধ্যে নিয়ে আসবার কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছি। সেখানে শুধু শিক্ষক নয়, শিক্ষা প্রশাসনের সাথে যারা জড়িত, শিক্ষা ব্যবস্থাপনার সাথে যারা জড়িত তাদের অনেকেই প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। আগামী দিনেও করবেন। এবছরের শেষ নাগাদ প্রশিক্ষণগুলো শেষ করবো। এ পর্যন্ত দুই লাখ ৩০ হাজারের বেশি শিক্ষককে সাইকোলজিক্যাল পার্সপেক্টিভ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। আমরা আশা করি প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অন্তত দু’জন করে কাউন্সিলিং এ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষক থাকবেন। শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, আগামীবার আরো উৎসবের সঙ্গে শিক্ষক দিবস উদ্যাপন করা হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষকদের মান উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী যেভাবে শিক্ষায় বিনিয়োগ করছেন, সেই বিনিয়োগের সুফল আমরা অবশ্যই পাবো।