২০২২-২০২৩ অর্থবছরে রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ৬৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার

প্রকাশিত : জুলাই ২১, ২০২২ , ৫:৩৭ পূর্বাহ্ণ

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, চলতি ২০২২-২০২৩ অর্থবছরে রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৬৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এর মধ্যে গত বছরের পণ্য খাতে রপ্তানি আয়ের ১১.৩৬ ভাগ প্রবৃদ্ধি ধরে ৫৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং সেবাখাতে রপ্তানি আয়ের ১২.৫ ভাগ প্রবৃদ্ধি ধরে ৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। চলতি বছর উভয় খাতে ১০.১০ ভাগ প্রবৃদ্ধি ধরে ৬৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। গত বছর পণ্য রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ৪৩.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, এর বিপরীতে প্রকৃত রপ্তানি হয়েছে ৫২.০৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি। সেবাখাতের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৭.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, এখাতে প্রকৃত রপ্তানি হয়েছে ৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। পণ্য ও সেবাখাতে ৫১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে প্রকৃত রপ্তানি হয়েছে ৬০.০৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। আগামী ২০২৪-২০২৫ সালে দেশের রপ্তানি ৮০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রাকে সামনে রেখে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। বাণিজ্যমন্ত্রী বুধবার ঢাকায় বাংলাদেশ সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আগামী ২০২২-২০২৩ অর্থবছরের রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ঘোষণা সংক্রান্ত সভায় রপ্তানির এ লক্ষ্যমাত্রা ঘোষণা করেন।
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের প্রধান রপ্তানি পণ্য তৈরি পোশাক। এ খাতের রপ্তানির প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৩৫.৪৭ ভাগ। মোট রপ্তানির সিংহভাগ আসে তৈরি পোশাক খাত থেকে। আশা করা হচ্ছে, আগামীতেও এ খাতের রপ্তানি বৃদ্ধির ধারা অব্যাহত থাকবে। এছাড়া, আমাদের কৃষিখাত, চামড়াখাত, পাটখাত, হোম টেক্সটাইল খাতের রপ্তানি ইতোমধ্যে প্রতিটি খাতে এক বিলিয়নের বেশি হয়েছে। আইসিটি, লাইট ইঞ্জিনিয়ারিংসহ প্রায় ৮-১০ টি খাতের রপ্তানি বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যাবে। বিশেষ করে আইসিটি খাতের রপ্তানি ২০২৫ সালের মধ্যে ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার হবে। বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, সাম্প্রতিক অর্থবছরের সামগ্রিক অর্থনীতি ও রপ্তানি খাতে অর্জিত প্রবৃদ্ধির গতিধারা, পণ্য ও বাজার সম্প্রসারণে বহুমুখীকরণে সরকারের গৃহীত আর্থিক ও অ-আর্থিক প্রণোদনা, কোভিড-১৯ ও ইউক্রেন সংকটের ফলে বিশ্ব বাণিজ্যে দৃশ্যমান অভিঘাত, গ্লোবাল সাপ্লাই চেইনে সম্ভাব্য সংকট মোকাবিলায় সরকারের নীতি কৌশল, রপ্তানি সম্ভাবনাময় নতুন পণ্য ও সেবাখাতের বিকাশ, রপ্তানিখাত সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের অভিমত ও পরামর্শ এবং বিভিন্ন দেশের সাথে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সম্পর্ক জোরদারকরণে গৃহীত পদক্ষেপ বিবেচনায় রেখে এ লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ সভায় বক্তব্য রাখেন। এ সময় রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর ভাইস-চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত সচিব) এ এইচ এম আহসান, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (রপ্তানি) নুসরাত জাবীন বানুসহ বাণিজ্য মন্ত্রণারয়ের সিনিয়র কর্মকতা এবং রপ্তানিকারকগণ উপস্থিত ছিলেন।