জনসংখ্যা ও সম্পদের সমন্বয় করে কাজ করছে সরকার: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত : জুলাই ২১, ২০২২ , ৮:২২ অপরাহ্ণ

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: বৃহস্পতিবার ঢাকার কারওয়ান বাজারস্থ পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস-২০২২’ পালিত হয়েছে। অধিদপ্তরের আইইএম ইউনিট সভাকক্ষে এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব মোঃ সাইফুল হাসান বাদল। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সাহান আরা বানু, এনডিসি। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব ড. মুঃ আনোয়ার হোসেন হাওলাদার এবং UNFPA এর কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ Kristine Blokhus। এ সময় ভার্চুয়ালি প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব এখন ৭৯৬ কোটি মানুষ রয়েছে, যা আগামী নভেম্বরেই ৮০০ কোটি হবে। বিশে^ জনসংখ্যার ধারণ ক্ষমতা এক হাজার থেকে ১২’শ কোটি। সুতরাং জনসংখ্যা বৃদ্ধি নিয়ে বিশ্ববাসীকে এখনই ভাবতে হবে। বাংলাদেশের জনসংখ্যা এখন সাড়ে ১৬ কোটি। সরকারকে দেশের সাড়ে ১৬ কোটি মানুষের স্বাস্থ্য সেবা, পুষ্টির নিশ্চয়তা নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে। করোনায় গোটা বিশ্বর অর্থনীতি ভেঙ্গে পড়েছে। বাংলাদেশ করোনা মোকাবিলায় বিশ্ব ৫ম হয়েছে ঠিকই কিন্তু বিশে^র অন্য দেশগুলোর অর্থনৈতিক মন্দার প্রভাব এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের ফলে গোটা বিশে^র ন্যায় বাংলাদেশেও তেল, গ্যাস ও বিদ্যুৎ-সহ অন্যান্য অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। এছাড়া করোনার কারণে জনশক্তি রপ্তানিতেও প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। এসব কারণে সরকারকে জনসংখ্যা বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে রাখার পাশাপাশি দেশের মানুষকে কর্মমুখী করার উদ্যোগ হাতে নিতে হচ্ছে। আমাদের সম্পদ সীমিত। এই সীমিত সম্পদ দিয়েই দেশের মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে হবে, শিক্ষার সুবিধাসহ স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবা দিতে হবে। অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ পরিবার পরিকল্পনা কর্মী, শ্রেষ্ঠ সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠান এবং পরিবার পরিকল্পনা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড-২০২২ পুরস্কারপ্রাপ্তদের হাতে পুরস্কার ও ক্রেস্ট তুলে দেয়া হয়। উল্লেখ্য, জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিল (UNFPA) কর্তৃক নির্ধারিত জনসংখ্যা দিবসের এবারের প্রতিপাদ্য ছিল ‘A world of 8 billion: Towards a resilient future for all-Harnessing opportunities and ensuring rights and choice for all’, যার বাংলা ভাবান্তর হলো ‘৮০০ কোটির পৃথিবী: সকলের সুযোগ, পছন্দ ও অধিকার নিশ্চিত করে প্রাণবন্ত ভবিষ্যৎ গড়ি’। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের আওতাধীন পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর উপজেলা, জেলা, বিভাগ ও জাতীয় পর্যায়ে দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে দিবসটি উদ্যাপন করেছে।