প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীর সাথে কাতারের শ্রম মন্ত্রীর বৈঠক

প্রকাশিত : আগস্ট ২১, ২০২২ , ৮:৪৭ অপরাহ্ণ

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: কাতারে বাংলাদেশের শ্রমবাজার উন্নয়ন এবং সম্প্রসারণ বিষয়ে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদের সাথে কাতারের শ্রম মন্ত্রী আলী বিন সাইদ বিন সামিখ আল মাররি’র বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।
রবিবার ঢাকায় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রীর অফিস কক্ষে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময় মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন উপস্থিত ছিলেন। এ সময় মন্ত্রীদ্বয় কাতারে বাংলাদেশের শ্রমবাজার উন্নয়ন, কাতারের শ্রম আইন, কর্মীদের সামগ্রিক সুরক্ষা ও দায়িত্ব, কর্তব্য ও অধিকার নিয়ে আলোচনা করেন। এছাড়া বৈঠকে কাতারে নার্সিং, হসপিটালিটি, নির্মাণ, সেবা এবং আইটি খাতে বাংলাদেশ হতে প্রয়োজনীয় কর্মী নিয়োগের বিষয়ে আলোচনা হয়। প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের কর্মীরা অত্যন্ত পরিশ্রমী এবং দায়িত্বশীল। তারা মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে দক্ষতা ও সফলতার সাথে অবদান রাখছে। এছাড়া বাংলাদেশি কর্মীদের দক্ষতার মানোন্নয়নে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। মন্ত্রী কাফালা পদ্ধতিতে পরিবর্তন এবং ন্যূনতম মজুরি নির্ধারণ বিষয়ে কাতারের ইতিবাচক সংস্কারের প্রশংসা করেন। বৈঠকে কাতারের শ্রম মন্ত্রী বাংলাদেশি কর্মীদের কর্মদক্ষতার প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, কাতারের শ্রম আইন সংশোধন করা হয়েছে। এই আইনে দেশীয় শ্রমিকদের মতো বিদেশি শ্রমিকরা যাবতীয় সুবিধাদি পাবে। তিনি কাতারের ক্রমবর্ধমান শ্রমবাজারের উপযোগী দক্ষ কর্মী প্রেরণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি জানান নিয়োগকর্তারা বিদেশি শ্রমিকদের সাথে কোনো ধরনের আইন পরিপন্থী কাজ করলে সাথে সাথেই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। তিনি আরো জানান, কাতারে কর্মরত শ্রমিকদের জন্য ওয়েলফেয়ার ফান্ড গঠন করা হয়েছে। কোনো নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান পাওনা পরিশোধ করতে অসমর্থ হলে এই তহবিল থেকে অর্থ প্রদান করা হচ্ছে। একইসাথে তিনি কাতারে অবস্থানরত বাংলাদেশি কর্মীদের কাতারের আইন মেনে চলার ওপর বিশেষভাবে গুরুত্বারোপ করেন। তিনি তাদের দায়িত্ব, কর্তব্য ও অধিকারের বিষয়ে আরো সচেতন করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন।
বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন কাতার শ্রম মন্ত্রণালয়ের অ্যাসিস্টেন্ট আন্ডার সেক্রেটারি হাসান আল ওবাইদলি, কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. জসিম উদ্দিন, জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো (বিএমইটি)’র মহাপরিচালক শহীদুল আলম এবং মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন।