আপাতত বিদ্যালয়ের সময়সূচি পরিবর্তন হচ্ছে না: শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত : আগস্ট ২৩, ২০২২ , ১:৩৯ পূর্বাহ্ণ

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন:শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, সপ্তাহের ছয়দিনে পাঠদানের যে কাজ সম্পন্ন হতো তা পাঁচ দিনেই সম্পন্ন করতে হবে। এছাড়া আপাতত বিদ্যালয়ের সময়সূচি পরিবর্তন হচ্ছে না বলেও জানান তিনি।
সপ্তাহে দুইদিন ছুটির সরকারি সিদ্ধান্তের পর সোমবার রাজধানীর ডেফোডিল ইনস্টিটিউট অভ্ আইটি আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, এমনিতেই আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে সপ্তাহে দুইদিন ছুটি থাকবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সাপ্তাহিক ছুটি দুইদিন করার পরিকল্পনা আমাদের ছিল। আমরা দুইদিন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত দিয়েছি। সপ্তাহে দুইদিন শুক্র ও শনিবার বন্ধ থাকবে। কেউ কেউ বলেছিলেন বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার বন্ধ রাখা যায় কি না। কিন্তু আজকাল অনেক বাবা-মা কর্মজীবী। তাদের ছুটির সঙ্গে সমন্বয় রেখে তাদের বিবেচনা করে শুক্র ও শনিবার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সকল চাকরিজীবীরা সপ্তাহে পাঁচদিন কাজ করে। শুধু শিক্ষকরা ছয়দিন কাজ করে। কাজেই সেই শিক্ষকরাও যদি পাঁচদিন কাজ করে তাহলে অনেক বেশি এনার্জি নিয়ে কাজ করতে পারবে। চলমান বিদ্যুৎ সংকট এই ছুটি কাজে দেবে কি না প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, কিছুটা তো কাজে দেবেই। ঢাকা শহরে যে পরিমাণ যানবাহন চলে, তার একটা বিরাট সংখ্যক যানবাহন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো কেন্দ্র করে। সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের সময়সূচি পরিবর্তন পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সময়সূচি পরিবর্তন সম্পর্কে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, অনেক বাবা-মা বাচ্চাদের স্কুলে দিয়ে অফিসে যান। পরিবর্তন করতে পারলে ভালো হতো। খুব বেশি অসুবিধা হলে দেখবো, আপাতত সময় যেটা আছে তাই থাকবে। ডেফোডিল ইনস্টিটিউট অভ্ আইটি আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষাক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হচ্ছে। সেসব পরিবর্তনে অনেক চ্যালেঞ্জ থাকবে সন্দেহ নেই। তবে চ্যলেঞ্জ মোকাবিলা করে আমাদের এগুতে হবে। কোনো কিছু সহজ নয়, কোনো কিছু সহজ ছিল না। বঙ্গবন্ধু এই বাংলাদেশটা দিতে গিয়ে অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন। প্রত্যেকে সাহস নিয়ে এগিয়ে যাবেন। আমরা যেনো বঙ্গবন্ধুকে হৃদয়ে ধারণ করতে পারি।