বিএনপি বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বে বিশ্বাস করে না

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২ , ৭:৫৭ অপরাহ্ণ

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম সাহেবের পাকিস্তান ভালো ছিল বক্তব্য প্রমাণ করে তারা বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বে বিশ্বাস করে না। তাদের হৃদয়ে রয়েছে পাকিস্তান। স্বাধীনতাবিরোধী এবং যুদ্ধাপরাধীরা তাদের দোসর। বিএনপি মহাসচিবের বক্তব্য মহান মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহিদ ও আত্মত্যাগকারী ২ লাখ মা-বোনের রক্তের সাথে বেইমানির শামিল। প্রতিমন্ত্রী বৃহস্পতিবার ঢাকায় জাতীয় মহিলা সংস্থায় বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা অডিটোরিয়ামে নিবন্ধিত স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতিসমূহের মধ্যে অনুদানের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফরিদা পারভীনের সভাপতিত্বে অনুদান বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ হাসানুজ্জামান কল্লোল এবং জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান চেমন আরা তৈয়ব। এসময় ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী নারীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, পাকিস্তানের প্রেতাত্মা বিএনপিকে উপযুক্ত জবাব দেওয়ার সময় এসেছে। বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তা বাধাগ্রস্ত করতে বিএনপি আন্দোলনের নামে নৈরাজ্য করছে। তাদের এ ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড কোনোভাবেই মেনে নেওয়া হবে না। রাজপথেই তাদের প্রতিহত করা হবে। প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, জাতিসংঘে প্ল্যাটফর্ম অভ্‌ উইমেন লিডারস সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বব্যাপী নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে তিন দফা প্রস্তাব করেছেন। প্রধানমন্ত্রী ২০৩০ সালের মধ্যে প্রতিটি সেক্টরে নারীর অংশগ্রহণ ৫০ শতাংশ নিশ্চিত করার অঙ্গীকার করেছেন। এ অঙ্গীকার বিশ্বব্যাপী নারীর ক্ষমতায়নে নবদিগন্তের সূচনা করবে। প্রতিমন্ত্রী এ সময় মহিলা সমিতির সদস্যদের উদ্দেশে বলেন, নারীর প্রতি নির্যাতন-সহিংসতা প্রতিরোধ, যৌতুক ও বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতির সদস্যদের আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে। উল্লেখ্য, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরে নিবন্ধিত স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতি রয়েছে ২০ হাজার ৩৫৭টি। এ বছর তিনটি ক্যাটাগরিতে ৩ হাজার ৭ শত ৮টি সমিতির মাঝে ১১ কোটি ৩০ লাখ ৩০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করা হয়েছে।