টেকসই ও গুণগত শিল্পায়ন আমাদের সরকারের রাজনৈতিক অঙ্গীকার

প্রকাশিত : নভেম্বর ২৪, ২০২২ , ৮:১৬ অপরাহ্ণ

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন এম.পি বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ১০ম জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা উদ্বোধন করেছেন। শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন এসএমই ফাউন্ডেশন ২৪ নভেম্বর থেকে ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত ১০ (দশ) দিনব্যাপী এ মেলার আয়োজন করেছে। এসময় শিল্পমন্ত্রী ‘জাতীয় এসএমই উদ্যোক্তা পুরস্কার ২০২২’ বিজয়ী উদ্যোক্তাদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন প্রফেসর ড. মোঃ মাসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি, শিল্প সচিব জাকিয়া সুলতানা এবং এফবিসিসিআই’র প্রেসিডেন্ট মোঃ জসিম উদ্দিন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন এম.পি বলেন, টেকসই ও গুণগত শিল্পায়ন আমাদের সরকারের রাজনৈতিক অঙ্গীকার। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত রূপকল্প-২০৪১ বাস্তবায়নের মাধ্যমে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি অর্জন ও শিল্পখাতের গুণগত পরিবর্তনের লক্ষ্য নিয়ে শিল্প মন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে। ফলে জিডিপিতে শিল্পখাতের অবদান ক্রমেই বাড়ছে। ইতোমধ্যে জিডিপিতে সার্বিক শিল্পখাতের অবদান ৩২ শতাংশ ছাড়িয়ে গেছে। দেশে বর্তমানে প্রায় ৭৮ লাখ এমএসই শিল্প গড়ে উঠেছে। এসব এসএমই শিল্প ডিজিপিতে শতকরা ২৫ ভাগ এবং মোট শিল্প কর্মসংস্থানে শতকরা ৮০ ভাগ অবদান রাখছে। এসএমই খাতের ক্রম-বিকাশমান ধারা অব্যাহত রেখে আমরা ইতোমধ্যেই স্বল্পোন্নত দেশ তথা এলডিসির তালিকা থেকে উত্তরণ ঘটিয়েছি। তিনি বলেন, শিল্প মন্ত্রণালয় হতে জাতীয় শিল্পনীতি-২০২২ ও ‘এসএমই নীতিমালা-২০১৯’ প্রণয়ন করা হয়েছে যা সফলভাবে বাস্তবায়িত হচ্ছে। উক্ত নীতিমালায় সরকারের উন্নয়ন রূপকল্পসমূহ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ২০২৪ সালের মধ্যে জাতীয় আয়ে (জিডিপি) এসএমই খাতের অবদান বিদ্যমান ২৫ শতাংশ থেকে ৩২ শতাংশে উন্নতকরণের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় শিল্পখাতে গতিশীলতা অব্যাহত রাখতে শিল্প মন্ত্রণালয় নতুন শিল্প কারখানা স্থাপন, পুরাতন কারখানার আধুনিকায়ন এবং যন্ত্রপাতি প্রতিস্থাপনের কাজ করছে। মন্ত্রী আরো বলেন, দেশীয় এসএমই শিল্পের উন্নয়নে এই মেলা ক্রমান্বয়ে আন্তর্জাতিক মাত্রা পাবে। এর ফলে দেশী পণ্যের প্রসার ঘটবে। নতুন শিল্প স্থাপন, কর্মসংস্থান বৃদ্ধি এবং সামগ্রিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে এর অবদান হবে সুদূরপ্রসারী। জাতীয় এসএমই উদ্যোক্তা পুরস্কার-২০২২ বিজয়ী উদ্যোক্তাদের অভিনন্দন জানিয়ে শিল্পমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে দেশের এসএমই উদ্যোক্তাদের অবদান ও অংশগ্রহণকে স্বীকৃতি প্রদানের লক্ষ্যে এসএমই ফাউন্ডেশন পুরুষ ও নারী ক্যাটাগরিতে এই পুরস্কার প্রদান করছে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার দেশ থেকে দারিদ্র্য দূরীকরণ, বেকারত্ব দূরীকরণসহ স্বনির্ভর হওয়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে শিল্পায়নের গুরুত্ব অপরিসীম। দেশে প্রতিবছর বিপুল সংখ্যক শিক্ষিত তরুণ-যুব সমাজের জন্য কর্মসংস্থান ও কাজের উৎস সৃষ্টি করা প্রয়োজন। সরকার বিপুল সংখ্যক শ্রমশক্তি কাজে লাগাতে শ্রমঘণ ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প-ভিত্তিক শিল্প উন্নয়ন কৌশলের ওপর জোর দিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, ক্ষুদ্র, মাঝারি ও কুটির শিল্পের বিকাশে সহায়তা দান, তাঁত শিল্প রক্ষা ও রেশম, বেনারসি এবং জামদানি পল্লি গড়ে তুলতে তাঁতি, কামার, কুমার ও মৃৎ শিল্পীদের বিশেষ প্রণোদনা প্রদান ও ঋণের শর্ত সহজী-করণের জন্য পুনঃ-অর্থায়ন কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। উল্লেখ্য, ১০ম জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা ২৪ নভেম্বর থেকে ০৬ ডিসেম্বর, ২০২২ সকাল ১০.০০ থেকে রাত ০৮.০০ পর্যন্ত খোলা থাকবে।