বঙ্গবন্ধু কাজী নজরুলকে জাতীয় কবির মর্যাদা দিয়ে যথাযোগ্য সম্মান দিয়েছেন

প্রকাশিত : জানুয়ারি ১৪, ২০২৩ , ১১:০২ অপরাহ্ণ

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামকে যথাযোগ্য সম্মান দেয়া হয়েছে কি না এ নিয়ে কেউ কেউ প্রশ্ন তোলেন। আমি মনে করি, এ নিয়ে প্রশ্ন তোলার অবকাশ নেই। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের পরপরই ১৯৭২ সালের ২৪মে কাজী নজরুল ইসলামকে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা থেকে সপরিবারে ঢাকায় এনে জাতীয় কবির মর্যাদায় অভিষিক্ত করেন। এর মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু কাজী নজরুলকে যথাযোগ্য সম্মান ও মর্যাদা দিয়েছেন। প্রতিমন্ত্রী শনিবার রাজধানীর বাংলামোটরস্থ মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক (এমটিবি) টাওয়ারের স্যামসন এইচ চৌধুরী মিলনায়তনে ‘জেমস অভ্‌ নজরুল’ এর শিল্পীবৃন্দের পরিবেশনায় নজরুল সংগীতের একক ভিডিও অ্যালবাম প্রকাশ ও নজরুল সংগীত শিল্পীদের ডিজিটাল ডিরেক্টরি প্ল্যাটফর্মের কাজের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, অসচ্ছলতার মধ্য দিয়ে বেড়ে ওঠা কবি নজরুল ৭৭ বছরের জীবনে ৩৪ বছর ১২০ দিন নির্বাক ছিলেন। সবমিলিয়ে সাহিত্যচর্চা করতে পেরেছেন মাত্র ২২ বছর। এছাড়া নজরুল এমন সময়ে সাহিত্য সাধনা শুরু করেন যখন বাংলা সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় দোর্দণ্ড প্রতাপে রাজত্ব করছিলেন এবং সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। তিনি বলেন, যদি নজরুল দীর্ঘ সময় নির্বাক না থাকতেন এবং অসচ্ছলতার মধ্য দিয়ে বেড়ে না উঠতেন, তবে বাংলা সাহিত্য জগতে তিনি আকাশকে স্পর্শ করতে পারতেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন ‘জেমস অফ নজরুল’ এর আহ্বায়ক বিশিষ্ট নজরুল সংগীত শিল্পী সাদিয়া আফরিন মল্লিক। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ মাহবুবুর রহমান, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নাসের এজাজ বিজয় এবং ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর সৈয়দ সাদ আন্দালিব। শুদ্ধ সুরে নজরুল সংগীত পরিবেশনার উপযোগিতা নিয়ে আলোচনা করেন বিশিষ্ট কণ্ঠশিল্লী সুমন চৌধুরী। সর্বাধুনিক রেকর্ডিং কার্যক্রম নিয়ে কথা বলেন বিশিষ্ট সংগীত পরিচালক ইবরার টিপু। উল্লেখ্য, কবি কাজী নজরুল ইসলামের অমূল্য সংগীতরাজি শুদ্ধ সুরে উপস্থাপন, নজরুল সংগীত শিল্পীদের শুদ্ধ সুরে প্রশিক্ষিত করে পরিবেশনায় উদ্বুদ্ধকরণ, পরিবেশনায় নান্দনিকতা, আধুনিক পরিমণ্ডলে প্রযুক্তির সুষম মেলবন্ধনে উপস্থাপিত গানগুলোর ভিডিও ধারণ ও প্রচারের মাধ্যমে দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বহির্বিশ্বে ছড়িয়ে দেয়া ইত্যাদি স্বপ্নগুলোকে বুকে ধারণ করে বিশিষ্ট নজরুলগীতি শিল্পী সাদিয়া আফরিন মল্লিকের উদ্যোগে ‘জেমস অভ্‌ নজরুল’ যাত্রা শুরু করে ২০১৬ সালে।