বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বগাঁথা সংরক্ষণ করা হচ্ছে

প্রকাশিত : জানুয়ারি ১৯, ২০২৩ , ৬:৫৬ অপরাহ্ণ

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, জীবিত সকল বীর মুক্তিযোদ্ধার বীরত্বগাঁথা সংরক্ষণ করছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। এজন্য ‘বীরের কণ্ঠে বীরগাঁথা’ প্রকল্পের কার্যক্রম ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে।
বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা লে. কর্নেল (অব.) আব্দুর রউফ, বীর বিক্রম রচিত স্বাধীনতা ’৭১ – মুক্তিযুদ্ধে জনযোদ্ধা গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এ কথা জানান। মন্ত্রী বলেন, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নতুন প্রজন্ম যত জানবে তত বেশি তারা দেশপ্রেম নিয়ে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। নতুন প্রজন্মকে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় গড়ে তুলতে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বগাঁথা তাদের জানাতে হবে। এজন্য গবেষক ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আরও বেশি করে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গ্রন্থ লেখতে আহ্বান জানান তিনি। মন্ত্রী বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ হঠাৎ ঘটে যাওয়া কোন ঘটনা নয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে দীর্ঘ ২৩ বছরের সংগ্রাম আর ত্যাগের ফসল হচ্ছে স্বাধীন বাংলাদেশ। স্বাধীনতাকে অর্থপূর্ণ করতে হলে দেশকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। এ সময় তিনি পাকিস্তান আমলে বাঙালিদের প্রতি বিভিন্ন বৈষম্যের চিত্র তুলে ধরেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা লে. কর্নেল (অব.) হেলাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য সিমিন হোসেন রিমি, সাবেক পররাষ্ট্র সচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা শমসের মবিন চৌধুরী বীরবিক্রম, সাবেক সেনাপ্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) হারুন-উর-রশীদ বীরপ্রতীক; লে. জেনারেল (অব.) বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম বীরপ্রতীক, বীর মুক্তিযোদ্ধা লে. কর্নেল (অব.) আব্দুর রউফ, বীর বিক্রম; বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর (অব.) ওয়াকার হাসান বীরপ্রতীক প্রমুখ।