ভারতীয় ভিসা চালুর দাবীতে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে ব্যবসায়ীদের সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত : জুন ২৬, ২০২২ , ৫:২২ অপরাহ্ণ

ডিজার হোসেন বাদশা, পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা ও ভারতের ফুলবাড়ি ইমিগ্রেশন রুটে ভারতীয় ভিসা চালুর দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে ব্যবসায়ীরা। রোববার (২৬ জুন) দুপুরে পঞ্চগড় চেম্বার অব কমার্স ভবনে এই সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর আমদানি রপ্তানিকারক গ্রুপ। সংগঠনটির সভাপতি আব্দুল লথিব তারিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সাধারন সম্পাদক কুদরতি-খুদা-মিলন।
এসময় কুদরতি-খুদা-মিলন লিখিত বক্তব্যে বলেন ২০১৬ সালে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট চালু হয়। ভারতীয় দূতাবাস ফুলবাড়ি রুটে ভিসা প্রদান শুরু করলে ভারতের সাথে ব্যবসার পাশাপাশি যাতায়াতও শুরু হয়। কিন্তু ২০১৯ সালে কোভিড ১৯ সংক্রমণ ঠেকাতে ভারতে বিদেশী নাগরিকদের যাতায়াত বন্ধ করে দেয়া হয়। করোনা সংক্রমণ কমে গেলে ২০২১ সালের শুরুর দিকে পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন রুটে ভিসা দেয়া শুরু করে ভারতীয় সরকার । গত মার্চ মাস থেকে সবধরনের ভিসা দেয়া শুরু করেন তারা। কিন্তু ভিসায় রুট নিয়ে সমস্যায় পড়েছেন দেশের একমাত্র চতৃর্দেশীয় স্থলবন্দর বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর সংশ্লিষ্ট ভারত, নেপাল এবং ভূটানের যাত্রীরা। বক্তারা বলেন এই স্থলবন্দরের সাথে সংশ্লিষ্ট ভারতের ফুলবাড়ি স্থলবন্দর রুটে ভারতীয় ভিসা দেয়া হচ্ছেনা । তাই দেশের অন্যান্য স্থলবন্দর দিয়ে ভারতে প্রবেশ করা গেলেও বাংলাবান্ধা দিয়ে যেতে পারছেনা বাংলাদেশীরা। এই ইমিগ্রেশন দিয়েই বাংলাদেশী শিক্ষার্থী, রোগী, ব্যবসায়ী সহ পর্যটকরা ভারত, নেপাল এবং ভূটানে যাতায়াত করেন । এই রুটে ভিসা না দেয়ায় সমস্যায় পড়েছে স্থানীয় সহ দেশের হাজারো মানুষ । করোনার আগে এই রুটে প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষ ভারত, নেপাল, ভুটান এবং ভারতের দার্জিলিং, সিকিম সহ বিভিন্ন পর্যটন এলাকায় যাতায়াত করতো । অনেকে চিকিৎসা এবং ব্যবসার নানা কাজে ভারতে ভ্রমণ করতো । কিন্তু ভিসা না দেয়ার কারণে নানা সমস্যায় পড়েছেন বাংলাদেশীরা। বিশেষ করে ব্যবসায়ীরা সংকটে পড়েছেন। তারা অতিদ্রুত ফুলবাড়ি বন্দর দিয়ে ভিসা দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।