সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা ও সাম্প্রদায়িক বিভাজন দেশকে গভীর সংকটে ফেলে দেবে

প্রকাশিত : জুলাই ১৭, ২০২২ , ৮:৪৪ অপরাহ্ণ

ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: জাতীয় নির্বাচনের দিনক্ষণ যতই ঘনিয়ে আসছে সাম্প্রদায়িক বিভাজন ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে। সম্প্রতি দেশের বিভিন্নস্থানে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা ও অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর ইত্যাদি একটি পরিকল্পিত ঘটনা। উগ্র সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী এই হামলার জন্য দায়ী। প্রশাসনের দুর্বলতার কারণে এই হামলা সংঘটিত হচ্ছে। সরকার, রাজনৈতিক দল, সামাজিক শক্তি এখনই এই হামলা প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ না করলে ভবিষ্যতে দেশে এক ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে।
রবিবার (১৭ জুলাই) বিকাল ৫টায় বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির ঢাকা মহানগরের উদ্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত এক প্রতিবাদ সমাবেশ ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দ এই অভিমত প্রকাশ করেন। মহানগর পার্টির উদ্যোগে সম্প্রতি নড়াইলের দিঘুলিয়া সাহা পাড়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সংখ্যালঘুদের ওপর সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিরোধে এই প্রতিবাদ সমাবেশ আয়োজন করা হয়। প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কমরেড আবুল হোসাইন। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নগর সাধারণ সম্পাদক কমরেড কিশোর রায়, মহানগর নেতা কমরেড মোঃ তৌহিদুর রহমান, কমরেড সাদাকাত হোসেন খান বাবুল, কমরেড মুর্শিদা আখতার নাহার, কমরেড শিউলী সিকদার, কমরেড তাপস দাস, কমরেড অতুলনাথ দাস আলো প্রমুখ। সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, আওয়ামী লীগের অনাগ্রহের কারণে ১৪ দলকে নিষ্ক্রিয় করে রাখা হয়েছে। অথচ এই হামলার প্রতিবাদ আওয়ামী লীগসহ ১৪ দলকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করা দরকার। সংবাদ বিজ্ঞপ্তির।