ঝিনাইদহে সাংবাদিকদের সাথে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির মতবিনিময়

প্রকাশিত : জুলাই ২১, ২০২২ , ২:৫৫ পূর্বাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসি, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ঝিনাইদহ-১ আসনের (শৈলকূপা) সংসদ সদস্য আব্দুল হাই ঝিনাইদহে কর্মরত সাংবাদিকদের সঙ্গে মত বিনিময় করেছেন। বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঝিনাইদহ প্রেসক্লাব এর ভি.আই.পি হল রুমে এ মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই এমপি, ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের সভাপতি এম.রায়হান,সাধারন সম্পাদক মাহামুদ হাসান টিপু,সাবেক সভাপতি আমিনুর রহমান টুকু,সিনিয়র সাংবাদিক দেলোয়ার কবীর,ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের প্রচার সম্পাদক শামীমুল ইসলাম শামীম,দপ্তর সম্পাদক জহুরুল ইসলাম হিরো,শাহানুর আলম,রাজিব হাসান,মোঃ সাজ্জাত হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। মত বিনিময়-কালে আব্দুল হাই এম.পি বলেন, আমি বিগত সময়ে বিভিন্নভাবে সাংবাদিক ভাইদের সহযোগিতা পেয়েছি। আগামীর পথ চলায়ও আমি ঝিনাইদহের সকল সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করছি। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের পাশে সব সময় থাকার আশ্বাস দেন।
ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোঃ মকবুল হোসেন ও দপ্তর সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামান আসাদ এর কাছে আব্দুল হাই এমপি সম্পর্কে জানতে চাইলে তারা বলেন, আব্দুল হাই এমপি শৈলকুপার গর্ব ও অহংকার। তিনি ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামীলীগের অভিভাবক ও ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি। শৈলকুপা উপজেলার রাজনীতিবিদ, ঝিনাইদহ-১ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ প্রতিমন্ত্রী।আব্দুল হাই এমপি তৃণমূল থেকে উঠে আসা জীবন্ত কিংবদন্তি মানবিক নেতা, মুজিব আদর্শের রাজপথের পরীক্ষিত অকুতোভয় সাহসী বীর মুক্তিযোদ্ধা, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সোনালী অর্জন,ঝিনাইদহ-শৈলকুপা-১ আসন থেকে বারবার নির্বাচিত মাননীয় সাংসদ আব্দুল হাই এম.পি, ঝিনাইদহ জেলা তথা শৈলকুপা উপজেলার লক্ষনেতা-কর্মীর আশ্রয়স্থল মানবতার ফেরিওয়ালা। এই জীবন্ত কিংবদন্তি নেতাকে নিয়ে একটি কুচক্রী মহলের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে একটি পত্রিকায় মিথ্যা, বানোয়াট, ভিক্তীহীন, কাল্পনিক মনগড়া সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে আব্দুল হাই এমপির সুনাম নষ্ট করার জন্য একটি কুচক্রী মহল উঠে পড়ে লেগে আছে এবং তাঁর ভাবমূর্তি নষ্ট করে দেওয়ার অপচেষ্টা করছে প্রতিনিয়ত, বাংলাদেশ আওয়ামী,ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামীলীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা আব্দুল হাই এমপির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীদের রুখে দাঁড়ানোর জন্য তাঁর হাজার হাজার ভক্ত এবং সমর্থকরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে আগামীতে তীব্র প্রতিবাদ এবং রাজপথে সজাগ এবং সতর্ক থাকার জন্য উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছেন। আব্দুল হাই এমপি একজন জনপ্রিয় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, বীর মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক শৈলকুপা গণমানুষের অতি কাছের মানুষ তিনি। নীতি-নৈতিকতা তার অনন্য সম্পদ। আব্দুল হাই এমপি ঝিনাইদহ জেলা ও শৈলকুপা উপজেলা আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করতে তার গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন এবং ঝিনাইদহ জেলা ও শৈলকুপা আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী সাংগঠনিক ভিত্তির ওপর দাঁড় করিয়েছেন তিনি। একজন সৎ ও আদর্শবান রাজনৈতিক হিসেবে তিনি এ জেলাতে পরিচিত। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে আব্দুল হাই একজন দক্ষনেতা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জননেত্রী শেখ হাসিনার সোনার বাংলা বিনির্মাণ তার একমাত্র লক্ষ্য। তিনি ১৯৬৮ সালে মহকুমা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও ১৯৬৯ সালে সরকারি কেসি কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি নির্বাচিত হন। একই বছর তিনি বৃহত্তর যশোর জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধ শুরু হলে তিনি ঝিনাইদহে স্বাধীন বাংলার প্রথম পতাকা উত্তোলন করেন। দেশ স্বাধীনের পর তিনি ঝিনাইদহ যুবলীগের আহ্বায়ক ও ১৯৭৩ সালে যুবলীগের মহকুমা সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৭ সালে তিনি ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ১৯৯৮ সালে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০০৫ সালে আব্দুল হাই ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন। ২০০১ সালের অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে ঝিনাইদহ-১ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য এবং ২০২২সাল পর্যন্ত সংসদ সদস্য চলমান আছেন।২০১৪ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত তিনি মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।