শেখ কামাল বেঁচে থাকলে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির পথ আরো সুগম হতো

প্রকাশিত : আগস্ট ৫, ২০২২ , ১১:২২ অপরাহ্ণ

শিল্প প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ কামাল আহমেদ মজুমদার, সংগৃহীত চিত্র।

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: শিল্প প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ কামাল আহমেদ মজুমদার বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জ্যেষ্ঠ পুত্র, মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এবং বিশিষ্ট ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল দেশ ও জাতির কল্যাণে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে গেছেন। তিনি বেঁচে থাকলে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির পথ আরো সুগম হতো এবং এতোদিনে হয়তো বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে উঠতো।শুক্রবার রাজধানীর মিরপুর-১৩ এলাকায় বায়তুর রেজা জামে মসজিদে পবিত্র জুমার নামাজ আদায়ের পূর্বে উপস্থিত মুসল্লিদের উদ্দেশে প্রদত্ত বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। শিল্প প্রতিমন্ত্রী বলেন, স্বাধীনোত্তর যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ পুনর্গঠন ও পুনর্বাসন কর্মসূচির পাশাপাশি সমাজের পশ্চাৎপদ জনগোষ্ঠীর ভাগ্যোন্নয়নে শেখ কামালের অসামান্য অবদান রয়েছে। তিনি উপমহাদেশের অন্যতম ক্রীড়া সংগঠন আবাহনী ক্রীড়া চক্রের প্রতিষ্ঠাতা। তিনি ছাত্রলীগের একজন নিবেদিত, সংগ্রামী ও আদর্শবাদী কর্মী হিসেবে ১৯৬৯ এর গণঅভ্যুত্থান ও ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তাঁর অকাল মৃত্যুতে দেশের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। প্রতিমন্ত্রী এ সময় বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই ক‌ওমি সনদের স্বীকৃতি দিয়েছেন উল্লেখ করে বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির পাশাপাশি ইসলামের প্রচার ও প্রসারেও আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমান সরকারের উদ্যোগেই দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে সর্বমোট ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপিত হয়েছে। বিকালে প্রতিমন্ত্রী রাজধানীর রূপনগর এলাকায় মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ভবনের অডিটোরিয়ামে বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন।