আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে বিএনপি নির্বাচনে অংশও নিবে না : করতেও দিবে না

প্রকাশিত : অক্টোবর ১৪, ২০২২ , ১১:১৫ অপরাহ্ণ

বিধান দাস, নিজস্ব প্রতিনিধি, ঠাকুরগাঁও, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: গুম, হত্যা, মানবাধিকার লঙ্ঘন করার কারনে র‌্যাবের উপর স্যাংসন দেওয়া হয়েছে। র‌্যাব তো বাংলাদেশ রাষ্ট্রের একটি প্রতিষ্ঠান মাত্র বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, সরকার দ্বারা র‌্যাব নিয়ন্ত্রিত। সরকারই তাদের মালিক, হুকুম দাতা। র‌্যাব তো কাজই করতে পারে না প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ ছাড়া। যদি স্যাংসন দিতেই হয় তাহলে সরকার বা প্রধানমন্ত্রীর উপরে দেওয়া উচিৎ।
শুক্রবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও জেলা শহরের কালিবাড়িস্থ নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময়-কালে তিনি এ কথা বলেন। নির্বাচন নিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, আগামী নির্বাচন যদি আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে হয় তাহলে বিএনপি সেই নির্বাচনে অংশ নিবে না এবং সেই নির্বাচন আমরা করতেও দিবে না। নির্বাচন হলে তত্ত্বাবধায়ক সরকার বা অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের মাধ্যমেই নির্বাচন হবে। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য আমরা আন্দোলন করছি। সরকার আমাদের নেতাকর্মীদের নামে মামলা দিয়ে গ্রেফতার করছে। নতুন করে আরো ২৫ হাজার নেতা কর্মীর নামে মামলা দেওয়া হয়েছে। মামলা হামলা যাই হউক এবার আর মাঠ ছাড়ছি না, জনগণ মাঠ ছাড়বে না। তিনি আরো বলেন, বিএনপি একটি লিবারেল ডেমোক্রেসি পার্টি। তারা রাজনীতি করে। সংবিধানের মধ্যে যে নিয়ম গুলো আছে তা মেনে রাজনীতি করে। নির্বাচনের মাধ্যমে সংসদে যাওয়ার জন্য রাজনীতি করে এবং তারা বিশ্বাস করে সভা, সমাবেশ, কথা বলার স্বাধীনতা, লেখার স্বাধীনতা, সংগঠনের স্বাধীনতা এগুলোতে ইনসিওর দেয়। কিন্তু সেই পরিবেশ নেই। দেশে এখন একটা একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেছে। একথা গুলো আগেও আমরা বলতাম। তাদের যে এখন সহযোগী দল জাতীয় পার্টি তার প্রধান জিএম কাদেরও বলছে- বাংলাদেশে কোন গণতন্ত্র নেই। এটি এখন একটি একনায়কতন্ত্র রাষ্ট্রে পরিণত হয়ে গেছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির সভাপতি তৈয়মুর রহমান, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ সহ বিএনপি’র অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।