সরকারকে অবিলম্বে পদত্যাগ করে সুষ্ঠু নির্বাচন দিতে হবে

প্রকাশিত : অক্টোবর ১৫, ২০২২ , ৯:৩৩ অপরাহ্ণ

ময়মনসিংহ ব্যুরো, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে কখনই সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না। তাই আওয়ামী লীগ সরকারকে অবিলম্বে পদত্যাগ করে সুষ্ঠু নির্বাচন দিতে হবে। শনিবার বিকেলে ময়মনসিংহ শহরের পলিটেকনিক মাঠে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন তিনি। বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘চুরি, দুর্নীতি, ডাকাতি এগুলো আওয়ামী লীগের মজ্জাগত। তারা একটি চোরের দল।দুইটা জিনিস আওয়ামী লীগের বডি কেমিস্ট্রিতে আছে। ওখান থেকে তারা বের হতে পারে না। একটা হচ্ছে চুরি, আরেকটা হচ্ছে সন্ত্রাস। দেখবেন, তারা কথায় কথায় লাঠি নিয়ে আসবে, কথায় কথায় লাঠি নিয়ে আসবে, ভয় দেখাবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগ চোরের দল, আমার কথা না। কথাটা আমার না। কথাটা ওদের নেতা শেখ মুজিবুর রহমানের। ১৯৭৪ সালে যখন আওয়ামী লীগের দুঃশাসনের কারণে দুর্ভিক্ষ হলো, সেই দুর্ভিক্ষের সময় তিনি বললেন, আমার তো সব চোরের দল। কম্বলগুলো যে আসলো বিদেশ থেকে, আমার কম্বল কোথায় গেল। এই হচ্ছে আওয়ামী লীগ’। তিনি আরও বলেন, একটা বিষয়ে আমরা পরিষ্কার করে বলতে চাই, দলীয় সরকার থাকলে কোনও নির্বাচন কোনোদিন সুষ্ঠু হবে না। সেটা প্রমাণ হয়েছে।
গাইবান্ধা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনের প্রসঙ্গ টেনে বিএনপি’র মহাসচিব বলেন, ১৩৮০টা সিসি ক্যামেরা ছিল, পর্যাপ্ত নাকি নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল, পুলিশ-র‌্যাব পাহারায় ছিল, তারপর ওই নির্বাচন দুপুরের মধ্যে বন্ধ ঘোষণা করতে হয়েছে। এ থেকেই প্রমাণ হয়, দলীয় সরকারের অধীনে কখনও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না। ফখরুল বলেন, বাংলাদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিলেন জিয়াউর রহমান। একটা তলা-বিহীন ঝুড়িকে তিনি সম্ভাবনাময় রূপ দিয়েছিলেন। তিনি বিদেশে লোক পাঠিয়েছিলেন। তাদের রেমিট্যান্সের টাকাতেই দেশ চলে। বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, নির্বাচন-কালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার, জ্বালানি তেল, চাল-ডালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি, পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের গুলিতে দলীয় নেতাকর্মীদের হত্যা, হামলা এবং মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে সারাদেশে বিভাগীয় সমাবেশের ধারাবাহিকতায় শনিবার ময়মনসিংহ বিভাগে সমাবেশ করছে বিএনপি। বেলা দুইটার দিকে শুরু হওয়া সমাবেশে সভাপতিত্ব করছেন ময়মনসিংহ মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক এ কে এম শফিকুল ইসলাম। এই সমাবেশে ময়মনসিংহ, শেরপুর, জামালপুর, নেত্রকোনা, টাঙ্গাইল ও কিশোরগঞ্জ বিএনপির নেতা-কর্মীরা উপস্থিত হয়েছেন।