ঝিনাইদহ আওয়ামী লীগের সম্পাদক পদে আবারও নির্বাচিত করতে চায় নেতা কর্মীরা

প্রকাশিত : অক্টোবর ৩১, ২০২২ , ১২:৪৩ অপরাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসী, নিজস্ব প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: আগামী ১৩ নভেম্বর ২০২২ ঝিনাইদহ জেলা আ’লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে পুনরায় সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত করতে চায় নেতা কর্মী এবং জেলাবাসী। ক্রমেই চাপ বাড়ছে জাতির জনকের সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার একনিষ্ঠ কর্মী, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের তৃণমূলের একজন যোদ্ধা হিসেবে আজীবনের ভালবাসার দল সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতি,বাংলাদেশ আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক থেকে বর্তমান ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক, সাবেক ঝিনাইদহ পৌর সভার মেয়র, আলহাজ্ব সাইদুল করিম মিন্টু’র উপরে। এই চাপ আসছে দলের তৃনমূল নেতা-কর্মীদের ভেতর থেকেই, দলের বাইরে থেকেও। সাইদুল করিম মিন্টু’র মানবিকতা, ব্যক্তিগত ব্যবহার, জন-সম্পৃক্ততা, নেতা কর্মীদের প্রতি অফুরান ভালবাসা, মানুষকে সম্মান দেয়া, নেতা কর্মীদের কথা ধৈর্য দিয়ে শোনা, গুরুত্ব দেয়া, তাৎক্ষনিক সমাধান করে দেয়া, অসহায়দের প্রতি দানবীর আচরণ, মসজিদ- মাদ্রাসা, এতিম খানাতে সার্বক্ষণিক সহযোগিতা সব মিলিয়ে সাইদুল করিম মিন্টু আজ ঝিনাইদহতে অনন্য এক উচ্চতায়। সহজ, সরল, সাবলীল আচরণে সাইদুল করিম মিন্টু জনমনে আজ আস্থার প্রতীকে পরিণত। পরিচ্ছন্ন, স্পষ্টবাদী রাজনৈতিক হিসাবে সব মহলেই সমাদৃত। সবার ভালবাসায় সিক্ত একজন মানুষ। বৃদ্ধ, যুবক থেকে কিশোর পর্যন্ত সব শ্রেণীর নারী, পুরুষ সাইদুল করিম মিন্টু’র কাছে অবাধে যাতায়াত করতে পারেন, কথা বলতে পারেন মন খুলে, এটাই আজ বাস্তবতা। শত ব্যস্ততায়ও সাইদুল করিম মিন্টু পরিচিত, অপরিচিতদের ফোন ধরেন, ব্যস্ততায় না ধরলে পরে কল ব্যাক করেন। ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক,সাবেক ঝিনাইদহ পৌর সভার মেয়র হওয়া সত্ত্বেও সাইদুল করিম মিন্টু’র মনে নুন্যতম অহংকার নেই। সদালাপী, আড্ডাবাজ, নির্মোহ, প্রাণবন্ত এক তরুননেতা।দলের নেতা কর্মীদের ভাষায়, “প্রাণের অনুভূতি ভালবাসার আরেক নাম সাইদুল করিম মিন্টু। সাইদুল করিম মিন্টুকে ঘিরেই আজ ঝিনাইদহের জেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ হচ্ছে। আওয়ামী লীগের তৃনমূল থেকে এবং দলের একটি বৃহৎ অংশই চান সাইদুল করিম মিন্টু ঝিনাইদহতে জেলা আওয়ামী লীগের পুনরায় সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হোক। ১৯৭৮এ ঝিনাইদহ সরকারি উচ্চ বালক বিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে রাজনীতিতে প্রবেশ এর মধ্য থেকে তার যাত্রা শুরু। মাঠের রাজনীতিতে তিনি বরাবরই আন প্যারালাল। আর সেই কারনেই ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র এবং দলের সাধারণ সম্পাদক, হয়েছেন। আগামীতে পুনরায় ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে এসব কারনেই সাইদুল করিম মিন্টুকে চাচ্ছেন দলের বৃহৎ অংশ। চলমান করোনাতে সাইদুল করিম মিন্টু প্রথম থেকেই ঝিনাইদহ পৌরবাসীর পাশে ছিলেন। শহরের ধনাঢ্য অনেকেই আছেন কিন্তু তাদেরকে করোনাতে ত্রাণ তৎপরতা চালানোয় এবং করোনাতে আর্থিক সহযোগিতা কিংবা খাবার দাবার নিয়ে দেখা যায়নি অসহায়দের পাশে। অসহায়, দুঃস্থ ছাড়াও মসজিদের ইমাম, মোয়াজ্জেন, অন্য বিভিন্ন শ্রেণীর পেশার মানুষকে সাইদুল করিম মিন্টু নীরবে নিভৃতে সাহায্য, সহযোগিতা সব সময়েই করে এসেছেন। শহরের এমন কোনও মসজিদ, মাদ্রাসা, এতিমখানা নেই যেখানে সাইদুল করিম মিন্টু’র সহযোগিতা নেই। সাইদুল করিম মিন্টু জেলা জুড়েই ধরেই আজ প্রশংসিত, নন্দিত রাজনীতিকে পরিণত হয়েছেন। সে কারনেই মানবতার ফেরিওয়ালা সাইদুল করিম মিন্টুকে সবাই ক্ষমতার কোনও না কোনও জায়গায় দেখতে চাচ্ছেন। সেটা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক কিংবা আসন্ন দ্বাদশ নির্বাচনে এমপি পদে। ঘাত প্রতিঘাতে কাটিয়ে উঠা ঝিনাইদহ পৌরসভার স্বপ্নদ্রষ্টা, উন্নয়নের রুপকার এক মানবতার ফেরিওয়ালা সাইদুল করিম মিন্টুকে প্রশ্ন করলে তিনি বলেছেন, অনেক আলোচনা আমাকে নিয়ে, এটা আমি জানি, জাতির জনকের সুযোগ্য কন্যা বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আপা আমাকে ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামীলীগে দায়িত্ব দিলেও আছি, না দিলেও আছি। তিনি আমাকে কোথায় কিভাবে রাখবেন তিনিই ভাল জানেন।
আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামীলীগকে আরও শক্তিশালী করে তুলতে দল পুনর্গঠনের কাজ জোরেশোরেই চালিয়ে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন দলটি।বিগত ২০১৫ সালের ২৫মার্চ জেলা আওয়ামী লীগের সর্বশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ওই সম্মেলনে সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই এমপি সভাপতি ও সাইদুল করিম মিন্টু সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছিলেন। আগামী ১৩নভেম্বর ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে এ সংগঠনের দুর্দিনের কাণ্ডারি সুখদুঃখের সাথী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও সভানেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার বীর সিপাহশালা জেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক জননেতা আলহাজ্ব সাইদুল করিম মিন্টুই আবারও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হবেন এমন প্রত্যাশা আওয়ামী লীগের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের।