ঝিনাইদহের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের মন জয় করে নিয়েছেন সাইদুল করিম মিন্টু

প্রকাশিত : নভেম্বর ৫, ২০২২ , ১১:১২ পূর্বাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসী, নিজস্ব প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ১৯৭৩ সালের পর ঝিনাইদহ জেলা জুড়ে বিএনপির ঘাঁটি হিসেবে পরিচিতি ছিল। বর্তমানে ঝিনাইদহ জেলার সর্বত্র নৌকার পাল তুলেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌরসভার মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু। সর্বশেষ জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয় গত ২০১৫ সালের ২৫মার্চ। সম্মেলনে সাইদুল করিম মিন্টু সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ধীরে ধীরে ঝিনাইদহ জেলা, উপজেলা, পৌর ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের রাজনীতির চিত্র বদলে গেছে। তৃনমূল নেতা কর্মীদের দাবি গত আট বছরে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টু বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের মন জয় করে নিয়েছেন। প্রতিটি ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পর্যায়ে আওয়ামী লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ,শ্রমিক লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ সকল অঙ্গসংগঠনকে সু-সংগঠিত করেছেন তিনি। তাছাড়া বিগত ৮ বছরে ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের এবং পৌরসভার উন্নয়নের ধারাবাহিকতা মিন্টু’র জনপ্রিয়তা আরও বাড়িয়েছে।
আগামী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে বর্তমান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টু’র নেতৃত্বে মাঠ-পর্যায়ে ব্যাপক কাজ করে চলেছেন তিনি। ধরতে গেলে তিনি এখন ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতির নীতিনির্ধারকের ভূমিকায় রয়েছেন। ঝিনাইদহের স্বপ্নদ্রষ্টা, প্রতিশ্রুতিশীল, উন্নয়নের রুপকার সাইদুল করিম মিন্টু একেবারেই তৃনমূল থেকে উঠে আসা, অনেক ঘাত-প্রতিঘাত, জেল-জুলুম হুলিয়া মাথায় নিয়ে রাজপথে থেকে যিনি রাজনীতি করে আজ অবধি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন।তরুণ ও পরিশ্রমী আওয়ামীলীগ নেতা,আমি ঠিক-দেশ ঠিক শ্লোগানের প্রবক্তা সাইদুল করিম মিন্টু সম্পর্কে জেলা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক ও সরকারি কৌশুলি জি.পি অ্যাড. বিকাশ কুমার ঘোষ ও পৌর আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কাজী কামাল আহমেদ বাবুসহ দলীয় কর্মীরা জানান, তরুণ এই নেতা পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হয়ে পৌর এলাকার রাস্তা-ঘাট, ব্রিজ-কালভার্ট, ড্রেন, আধুনিক মানের মার্কেট তৈরি, পার্ক নির্মাণ, গরীব অসহায় মেধাবী শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় সহযোগিতা করাসহ সকল নাগরিকদের সমস্যার সমাধান করছেন তিনি। ঝিনাইদহ পৌরসভাকে ডিজিটাল পৌরসভায় রূপান্তরিত করেছেন। বাংলাদেশের মধ্যে ঝিনাইদহ পৌরসভাকে একটি আধুনিক ও একটি মডেল পৌরসভায় রূপান্তরিত করেছেন। এছাড়াও তিনিই একমাত্র দলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের কাছে যেতে পেরেছেন। ‘বর্তমান সরকারের আমলে ঝিনাইদহ পৌরসভাতে অভূতপূর্ব উন্নয়ন করেছেন সাইদুল করিম মিন্টু। এমন কোনও সেক্টর নেই যেখানে আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। ঝিনাইদহ জেলার রাজনৈতিক মাঠ এখন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের দখলে। কোনও ষড়যন্ত্র জাতির উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে পারেনি। দল পুনরায় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করলে দলের ত্যাগী ও তৃনমূল নেতা-কর্মীদের পাশে থাকবেন এবং শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগ তথা ঝিনাইদহ বাসীর পাশেই থাকবেন বলে জানান সাইদুল করিম মিন্টু। সাইদুল করিম মিন্টু বলেন, সারা বাংলাতে উন্নয়নের একমাত্র দাবীদার বাংলার “মা” জননেত্রী শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছে বলে বিশ্বে আমাদের মাথা আজ উঁচু, মাদক-মুক্ত, জঙ্গি ও সন্ত্রাসমুক্ত ঝিনাইদহ গঠনে শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই। উন্নয়ন কাজ অব্যাহত রাখতেই আরো একবার নৌকার প্রয়োজন। তাই আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঝিনাইদহের চারটি আসনেই আবারো আমরা নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করবো, সেই প্রত্যাশা করি সকলের কাছে। জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে তিনি সব ভেদাভেদ ভুলে সকলকে একজোট হয়ে কাজ করার আহবান জানান।