ময়মনসিংহে একই স্থানে জাতীয় পার্টির দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি

প্রকাশিত : নভেম্বর ১৬, ২০২২ , ৭:২১ অপরাহ্ণ

ময়মনসিংহ ব্যুরো, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: আগামী ১৯ নভেম্বর ময়মনসিংহে জাতীয় পার্টির বেগম রওশন এরশাদ এবং গোলাম মোহাম্মদ কাদের সমর্থকরা একই স্থানে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচির ডাক দিয়েছেন। জাতীয় পার্টির দুই পক্ষের ডাকা সমাবেশকে কেন্দ্র করে উত্তাপ ছড়াচ্ছে ময়মনসিংহে জাপা’র রাজনীতিতে। আগামী ১৯ নভেম্বর ময়মনসিংহ নগরীর টাউনহল মাঠে সকাল ১১টায় বেগম রওশন এরশাদ পন্থীরা জাতীয় পার্টির সকল অঙ্গ সংগঠনের কর্মী সমাবেশ ঘোষণা দিয়েছেন এবং একই স্থানে জেলা জাতীয় পার্টির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনের ডাক দিয়েছে গোলাম মোহাম্মদ কাদের পন্থী নেতাকর্মীরা। দুই পক্ষই কর্মসূচি সফল করতে প্রতিদিনই জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে নেতাকর্মীরা প্রস্তুতি সভা করছে। কর্মসূচিতে উপস্থিতি বাড়াতে জনসংযোগ, পথ-সভা করছেন নেতাকর্মীরা। পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিকে ঘিরে নেতাকর্মী ছাড়াও সাধারণ মানুষের মধ্যে বাড়ছে উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা। দু’পক্ষের এই অনড় অবস্থান ও সভা করার প্রস্তুতিতে বিরাজ করছে টানটান উত্তেজনা। এসব কর্মকাণ্ড আতংক ছড়াচ্ছে সাধারণ মানুষের মধ্যেও। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদের মৃত্যু এবং ময়মনসিংহ সদর-৪ আসনের তিনবারের সংসদ সদস্য রওশন এরশাদের অসুস্থতার কারণে দলীয় বিভেদ বিচ্ছেদের রেশ পড়ে ময়মনসিংহের জাতীয় পার্টিতেও। ফলে ময়মনসিংহের জাতীয় পার্টিতে দু’টি গ্রুপ অবস্থান দেখা যায়। এরপর থেকেই বিভিন্ন সময় দুটি গ্রুপের নেতাকর্মীরা আলাদা ভাবে কর্মসূচি পালন করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী ১৯ নভেম্বর এক পক্ষের কর্মী সমাবেশে বেগম রওশন এরশাদ এবং অপর পক্ষে দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে গোলাম মোহাম্মদ কাদের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। এদিকে, রওশন এরশাদের বাসার পাঁচ’শ গজ সামনে দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করায় ক্ষিপ্ত রওশন অনুসারীরা। অপরদিকে যেকোনো মূলেই সমাবেশ করা হবে বলে ঘোষণা দিয়ে গোলাম কাদের পন্থী নেতাকর্মীরা। বেগম রওশন এরশাদ পন্থী ময়মনসিংহ জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব মোশাররফ হোসেন বলেন, জাতীয় পার্টি বলতেই হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদ এবং তাঁর সহধর্মিণী বেগম রওশন এরশাদ। রওশন এরশাদের নেতৃত্বেই ময়মনসিংহ জাতীয় পার্টি এখনো ঐক্যবদ্ধ। ময়মনসিংহে রওশন এরশাদ ছাড়া কোন কর্মসূচি করতে দেয়া হবে না। তাদের এ স্বপ্ন কোনদিন পূরণ হবে না। মহানগর জাতীয় পার্টির আহবায়ক ডাঃ কে আর ইসলাম বলেন, ১৯ নভেম্বর কর্মী সম্মেলন সফল করতে সকল প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। সেখানে বেগম রওশন এরশাদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। যিনি বর্তমান সংসদের বিরোধীদলীয় নেত্রী এবং ময়মনসিংহ সদর ৪ আসনের সংসদ সদস্য। আমদের কর্মী সমাবেশে পুরো জেলা থেকে হাজার হাজার নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করে কর্মসূচি সফল করবে। এদিকে,গোলাম মোহাম্মদ কাদের পন্থী মহানগর জাতীয় পার্টির আহবায়ক জাহাঙ্গীর আহম্মেদ বলেন, আমরা গঠনতন্ত্র অনুসরণ করেই গোলাম মোহাম্মদ কাদেরের সঙ্গে রয়েছি। গোলাম মোহাম্মদ কাদেরের উপস্থিতিতে জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলন সুন্দর ও স্বার্থক ভাবে হবে। ময়মনসিংহে জাতীয় পার্টি ও গোলাম কাদেরের হাতকে শক্তিশালী করতে সকল ধরণের প্রস্তুতিও নিচ্ছি। গোলাম মোহাম্মদ কাদের পন্থী মহানগর জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব মুসা সরকার বলেন, জাতীয় পার্টির মূল দায়িত্বে রয়েছেন হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদের ছোট ভাই গোলাম মোহাম্মদ কাদের। তাঁর হাত ধরেই জাতীয় পার্টি আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে। সেই লক্ষ্যে দলকে চাঙ্গা করতে আগামী ১৯ নভেম্বর জেলা জাতীয় পার্টির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন গোলাম মোহাম্মদ কাদের। একই স্থানে অপর পক্ষের সমাবেশ কর্মসূচির বিষয়ে তিনি আরো বলেন, টাউন হল মাঠে আমারই আগে সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছি। আমরা টাউন মাঠেই কর্মসূচি করবো। নতুন বাজার এলাকার ব্যবসায়ী খোরশেদ আলম বলেন, টাউন হলে জাতীয় পার্টির দুই গ্রুপের সমাবেশকে ঘিরে সাধারণ মানুষ আতংকে রয়েছে। কারণ রাজনৈতিক কোন সহিংসতা হলে সাধারণ মানুষ বেশি দূর্ভোগে পড়ে। আমরা আশা করি রাজনৈতিক গ্রুপগুলো শান্তিপূর্ণভাবে তাদের কর্মসূচি পালন করবে। ময়মনসিংহ কোতোয়ালী থানার ওসি শাহ কামাল আকন্দ বলেন, ‘একই স্থানে ও একই সময়ে জাতীয় পার্টির দুই পক্ষই কর্মসূচির ডাক দিয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে আলাদা আলাদা স্থানে কর্মসূচি করার অনুমতি দেওয়ার বিষয়ে প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ে সাথে দুই পক্ষের সাথে অলোচনা চলছে।’