বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশকে যারা অশান্ত করতে চায় তাদেরকে ছাড় নয়

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ৯, ২০২২ , ১:৩১ পূর্বাহ্ণ

শরীয়তপুর, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: পানি সম্পদ উপমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম বলেছেন, যারা আগুন সন্ত্রাস করে দেশে অরাজকতা করতে চায়, মানুষ হত্যা করে দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায় তাদেরকে জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে। বঙ্গবন্ধুর শান্তির বাংলাদেশকে যারা অশান্ত করতে চায়, তাদেরকে কোনোভাবেই ছাড় দেয়া হবে না। বৃহস্পতিবার শরীয়তপুর জেলা পরিষদের হলরুমে নবনির্বাচিত পরিষদের কার্যভার গ্রহণ ও প্রথম সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। উপমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল সোনার বাংলাদেশ গড়ার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সেদিকেই এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। তার সঙ্গে আমাদের সবাইকে কাজ করতে হবে। সকল ক্ষেত্রে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে। সরকারের সকল সেবার মান বৃদ্ধি করে জনগণের দ্বারপ্রান্তে সেবা পৌঁছে দিতে হবে। উপমন্ত্রী শামীম বলেন, বিএনপি-জামাতের দুঃশাসনের কথা এদেশের মানুষ ভুলে নাই। তারা ক্ষমতায় থাকতে আওয়ামী লীগের জাতীয় নেতাদেরকেও চুরির মামলা দিয়েছিল। তাদের নির্যাতনে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ঘরে থাকতে পারে নাই। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের হত্যা করেছে, হাজার হাজার নেতাকর্মী পঙ্গু হয়েছে। গ্রেনেড হামলা করে আইভী রহমানসহ ২৪ জন নেতাকর্মী হত্যা করেছে। আহসানউল্যাহ মাস্টার, শাহ এসএম কিবরিয়া সহ অনেক নেতাকে হত্যা করেছে, তা আমরা ভুলি নাই। তিনি বলেন,বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার মহানুভবতাকে দুর্বলতা ভাববেন না। এই ১৪ বছরে বিএনপি বহুবার আন্দোলনের ডাক দিয়েছে। জনগণ পাশে না থাকলে কোনো দিনই আন্দোলন সফল হবে না। আন্দোলন, নির্বাচন ও রাজপথে ব্যর্থ হয়ে তারা এখন দিশেহারা পথিক। এনামুল হক শামীম বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় যেতে বিদেশি প্রভুদের কাছে ধরনা দিচ্ছে। এ ধরনায় কোনো লাভ হবে না। ক্ষমতায় যেতে হলে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের অধীনেই অংশগ্রহণ করতে হবে। এ নিয়ে সংশয়ের কোনো অবকাশ নেই। তিনি আরো বলেন, বিএনপি মূলত নির্বাচন ও জনগণকে ভয় পায়। তারা জনগণের রায়ের প্রতি শ্রদ্ধাশীল নয়। এদেশের জনগণ বঙ্গবন্ধু-কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই ঐক্যবদ্ধ। জনগণ আগামী নির্বাচনেও পঞ্চমবারের মতো আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনবে। জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছাবেদুর রহমান খোকা সিকদারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন অপু, সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক। সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে সহ জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত সদস্যবৃন্দ।