হজযাত্রীদের এজেন্সি স্থানান্তরের সময়সীমা ১৫মে পর্যন্ত

প্রকাশিত : মে ১০, ২০২২ , ৫:১৯ অপরাহ্ণ

ফাইল ছবি।

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন:এবছর হজ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য যে সব বৈধ হজ এজেন্সির প্রাক-নিবন্ধিত ব্যক্তির সংখ্যা ৯৭ বা তদূর্ধ্ব সে সব এজেন্সিকে হজের নিবন্ধন স্থানান্তর কার্যক্রম সম্পন্নের জন্য অনুমতি প্রদান করেছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। বৈধ যে সব হজ এজেন্সির নিবন্ধিত ব্যক্তির সংখ্যা ৯৭ জনের কম সে সব এজেন্সি পারস্পরিক সমঝোতার মাধ্যমে সমন্বয় করে নিবন্ধন স্থানান্তর কার্যক্রম সম্পূর্ণ করতে পারবে। এক্ষেত্রে হজ ও ওমরাহ ব্যবস্থাপনা আইন, ২০২১ এবং এর অধীনে প্রণীত হজ ও ওমরাহ ব্যবস্থাপনা বিধিমালা, ২০২২ (খসড়া) এর ২৫ বিধি অনুযায়ী লিড এজেন্সি (তপশিল-৬ এর ফরম ১১ মোতাবেক) নির্ণয় করতে নির্দেশনা দিয়েছে মন্ত্রণালয়। পরে সমন্বয়কারী এজেন্সিসমূহের নিবন্ধিত ব্যক্তিগণকে লিড এজেন্সিতে স্থানান্তর করে নির্ধারিত কোটা পূরণ করতে হবে। সোমবার ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানায়। আগামী ১৫ মের মধ্যে লিড এজেন্সি নির্ধারণ করে ২০২০ সনের নিবন্ধিত হজযাত্রীদের এক এজেন্সি থেকে অন্য এজেন্সিতে স্থানান্তর সম্পন্ন করতে হবে। সমন্বয় শেষে সৌদি আরবের ই-হজ সিস্টেমে ইউজার তৈরির জন্য সৌদি আরবে হজ এজেন্সির তালিকা এবং হজ এজেন্সি-ভিত্তিক হজ-যাত্রীর সংখ্যা (গাইড ও মোনাজ্জেমসহ) প্রেরণ করা হবে। এক্ষেত্রে কোন সময় বৃদ্ধি করা হবে না। এজেন্সি-ভিত্তিক হজ-যাত্রীর তথ্য সৌদি আরবে প্রেরণের পর সকল ধরণের প্রতিস্থাপন কার্যক্রম শুরু হবে। বিভিন্ন অভিযোগে শাস্তিপ্রাপ্ত, লাইসেন্স স্থগিত বা লাইসেন্স সচল না থাকা এজেন্সি অথবা ই-হজ সিস্টেমে যেসব এজেন্সির ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড বন্ধ সে সকল হজ এজেন্সির বিদ্যমান নিবন্ধিত হজ-যাত্রীগণকে হজ কার্যক্রমে যোগ্য ও হজ-যাত্রী প্রেরণের উপযুক্ত এমন এজেন্সির সাথে ১৫মে’র মধ্যে শুধুমাত্র হজ-যাত্রী স্থানান্তর কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারবে। তাদের ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড বন্ধ থাকবে এবং তারা কোন নিবন্ধন, হজ-যাত্রী স্থানান্তর কার্যক্রম গ্রহণ করতে পারবে না।