নদী রক্ষায় জনসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য প্রচার কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে হবে

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ৬, ২০২২ , ১০:০১ অপরাহ্ণ

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সংগৃহীত চিত্র।

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ‘বিশ্ব নদী দিবস’ উদযাপিত হবে এবছরের ২৫ সেপ্টেম্বর। দিবসটি উপলক্ষ্যে রাজধানীসহ জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন ‘বিশ্ব নদী দিবস’ উদ্যাপন উপলক্ষ্যে রাজধানীতে সেমিনারের আয়োজন করবে। নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী দেশের নদী রক্ষার ক্ষেত্রে জনসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য সভা, সমাবেশ, কর্মশালা, প্রচার-প্রচারণা কার্যক্রম অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান। ‘বিশ্ব নদী দিবস’ উদ্যাপনে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) সহযোগিতায় নদী বন্দরগুলোতে ব্যাপক প্রচারের ব্যবস্থা করতে হবে। মঙ্গলবার নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন, বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন (বিএসসি), ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউট (এনএমআই) এবং নাবিক ও প্রবাসী শ্রমিক কল্যাণ পরিদপ্তরের উন্নয়ন, আর্থিক ও প্রশাসনিক সংক্রান্ত বৈঠকে এসব তথ্য জানানো হয়। নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব লায়লা জেসমিনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ, জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের সার্বক্ষণিক সদস্য কামরুন নাহার আহমেদ এবং বিএসসি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর এস এম মনিরুজ্জামান, নৌপরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমডোর মোঃ নিজামুল হক, এনএমআই’র অধ্যক্ষ ক্যাপ্টেন আতাউর রহমান, নাবিক ও প্রবাসী শ্রমিক কল্যাণ পরিদপ্তরের পরিচালক সুমন বড়ুয়া জুম সভায় উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে জানানো হয়, ঢাকার চারপাশের নদ-নদীসমূহ দূষণমুক্তকরণের লক্ষ্যে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন কার্যক্রম শুরু করেছে। আগামী ১৭ মার্চ ২০২৩ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনের পূর্বে এ কার্যক্রম সম্পন্ন করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ, দপ্তর ও সংস্থা হতে প্রাপ্ত মতামতসমূহ বিবেচনায় নিয়ে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের খসড়া আইন-২০২১ পরিমার্জনের কাজ চলমান রয়েছে। সভায় বিএসসি’র জন্য ছয়টি নতুন এলএনজি ট্যাংকার/ক্যারিয়ার ক্রয়ের লক্ষ্যে আন্তঃমন্ত্রণালয়ে সভা দ্রুত করার ওপর তাগিদ দেয়া হয়। কুড়িগ্রামে ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউটের (এনএমআই) শাখা স্থাপন এবং চট্টগ্রামে নাবিক ও প্রবাসী শ্রমিক কল্যাণ পরিদপ্তরের ‘সিম্যান্স হোস্টেল কমপ্লেক্স ভবন’ নির্মাণের লক্ষ্যে আনুষঙ্গিক কার্যক্রম দ্রুত সম্পন্ন করতে সভায় গুরুত্বারোপ করা হয়।