জাতির পিতা নাগরিকদের সামাজিক সুরক্ষা সুনিশ্চিত করেছিলেন

প্রকাশিত : অক্টোবর ১৭, ২০২২ , ১১:০৪ অপরাহ্ণ

জাতির পিতা নাগরিকদের সামাজিক সুরক্ষা সুনিশ্চিত করেছিলেন

পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন ও পরিবীক্ষণ কমিটির আহ্বায়ক আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ্, সংগৃহীত চিত্র।
বরিশাল, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন ও পরিবীক্ষণ কমিটির আহ্বায়ক আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ্ বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সংবিধানের আলোকে নাগরিকদের সামাজিক সুরক্ষা বিধানের ব্যবস্থা সুনিশ্চিত করেছিলেন। তাঁর হাত ধরে যে সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছিল সেটি এখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিশেষ কর্মযজ্ঞে রূপান্তরিত হয়েছে। আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ্ সোমবার বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার সেরালে স্থানীয় গুণীজন ও সমাজ সংগঠকদের সাথে এলাকার সার্বিক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নিয়ে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন। হাসানাত আবদুল্লাহ্ বলেন, যে সমাজ জ্ঞানী-গুণীজনের কদর করেনা, সে সমাজে জ্ঞানী-গুণীজনের সৃষ্টি হয়না। সমাজ সচেতন মানুষের সম্মিলিত মেধা, মনন ও কর্ম-প্রয়াস একটি সুখী, সমৃদ্ধ ও আত্মনির্ভরশীল সমাজ বিনির্মাণের সহায়ক শক্তি। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার সুষম উন্নয়ন নীতিতে দেশব্যাপী শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, বনায়ন, বিদ্যুৎ, যোগাযোগ ও অবকাঠামোখাতে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন করে চলেছে। অবহেলিত, পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্যে সমন্বিত কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, সরকারের সমাজসেবা অধিদপ্তর ২০২১-২২ অর্থ বছরে উপকারভোগীর সংখ্যা ও পরিমান বাড়িয়েছে। দেশে বয়স্ক ভাতাভোগীর সংখ্যা ৪৯ লাখ হতে ৫৭ দশমিক ০১ লাখে উন্নীত করা হয়েছে। আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ্ বরিশালবাসীর জীবনমান উন্নয়ন ও স্বচ্ছলতা আনয়নে সরকারের পাশাপাশি সমাজসেবামূলক সংগঠনগুলোকে আরো সক্রিয় ভূমিকা রাখার পরামর্শ দেন। এ ব্যাপারে তিনি সার্বিক সহায়তার আশ্বাস দেন।