৪৯তম গ্রীষ্মকালীন জাতীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতির বাণী

প্রকাশিত : অক্টোবর ১৯, ২০২২ , ৭:০৯ অপরাহ্ণ

রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ, সংগৃহীত চিত্র।

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ বৃহস্পতিবার ২০ অক্টোবর ৪৯তম গ্রীষ্মকালীন জাতীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা উপলক্ষ্যে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :
“শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের আয়োজনে এবং ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় ৪৯তম গ্রীষ্মকালীন জাতীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। তৃণমূল থেকে মেধাবী ক্রীড়াবিদ খুঁজে বের করতে এ আয়োজন একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ। পড়ালেখার পাশাপাশি খেলাধুলা ও শরীরচর্চা শরীর ও মনকে সুস্থ ও সুন্দরভাবে গড়ে তুলতে সাহায্য করে। খেলাধুলার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা সময়ানুবর্তিতা, শৃঙ্খলা, বন্ধুত্ব, ভ্রাতৃত্ব ও নেতৃত্বদানের গুণাবলি অর্জন করতে পারে। মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে ও ডিভাইস নির্ভরতা থেকে মুক্তি পেতেও খেলাধুলার বিকল্প নেই। খেলাধুলা শিক্ষার একটি অপরিহার্য উপাদান। খেলাধুলার মাধ্যমে বিশ্বে নিজের দেশকে তুলে ধরা যায়। একজন ক্রীড়াবিদ নিপুণ ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শনের মাধ্যমে দেশের জন্য বিপুল সম্মান বয়ে আনতে পারে।
খেলাধুলা কেবল নির্মল আনন্দই দেয় না, অন্যের সঙ্গে পরিচিতিও ঘটায়। এতে বিনিময় হয় নিজস্ব কৃষ্টি ও সংস্কৃতির। ৪৯তম গ্রীষ্মকালীন জাতীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা উপলক্ষ্যে সারাদেশ থেকে আগত শিক্ষার্থীরা ময়মনসিংহে অবস্থান করে এ অঞ্চলের ইতিহাস ও সংস্কৃতি সম্পর্কে জানতে পারবে এবং প্রতিযোগিতার নির্মল আনন্দ উপভোগ করতে সক্ষম হবে। ফুটবল, কাবাডি, হ্যান্ডবল, সাঁতার এবং দাবা এই পাঁচটি ক্রীড়ায় শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে অংশগ্রহণকারী ক্রীড়াবিদদের জন্য রইল আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীরা ভবিষ্যতে দক্ষ ক্রীড়াবিদ হিসেবে গড়ে উঠবে এবং বহির্বিশ্বে দেশের ভাবমূর্তি আরো উজ্জ্বল করে তুলবে – এ প্রত্যাশা করি।
আমি ৪৯তম গ্রীষ্মকালীন জাতীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতার সফলতা কামনা করছি।
জয় বাংলা।
খোদা হাফেজ, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”