সুস্থ সমাজ গঠনে শব্দদূষণ বন্ধ করতে হবে

প্রকাশিত : অক্টোবর ২৭, ২০২২ , ১০:২০ অপরাহ্ণ

সিলেট, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেছেন, সুস্থ ও সভ্য সমাজ গঠনে অযথা হর্ন বাজানো বা অপ্রয়োজনীয় শব্দ সৃষ্টি করা বন্ধ করতে হবে। তিনি বলেন, মাত্রাতিরিক্ত শব্দ মানসিক ক্লান্তি ও অবসাদ, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, স্নায়বিক সমস্যা, অমনোযোগিতা, স্মৃতিশক্তি হ্রাস এবং বধিরতাসহ প্রায় ৩০ ধরনের শারীরিক ও মানসিক সমস্যার সৃষ্টি করে। শব্দদূষণের কারণে শিশুরা মানসিকভাবে প্রতিবন্ধী হয়ে পড়তে পারে। এজন্য হাইড্রোলিক হর্নের ব্যবহার বন্ধসহ সকল ক্ষেত্রে অযথা শব্দ সৃষ্টি করা থেকে বিরত থাকতে হবে। বৃহস্পতিবার সিলেটে জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে পরিবেশ অধিদপ্তর আয়োজিত শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে সমন্বিত ও অংশীদারিত্বমূলক প্রকল্পের আওতায় পেশাজীবী, পরিবহন চালক ও শ্রমিকদের সচেতনতামূলক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন। সিলেট বিভাগীয় কমিশনার ড. মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত ডিআইজি নাবিলা জাফরিন রীনা, জেলা প্রশাসক মোঃ মজিবর রহমান এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মোহাম্মদ এমরান হোসেন। মূল প্রবন্ধ ও প্রকল্প সংশ্লিষ্ট তথ্যচিত্র উপস্থাপন করেন অধ্যাপক ড. আহমদ কামরুজ্জমান মজুমদার। মন্ত্রী বলেন, শব্দদূষণের সকল উৎসই আমরা সম্মিলিতভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে পারি। সরকারের পক্ষ থেকে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে আইনের প্রয়োগ করা হচ্ছে, প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। কিন্তু মামলা দিয়ে, শাস্তি দিয়ে এ সমস্যার স্থায়ী সমাধান হবে না। এক্ষেত্রে, গাড়িতে সঠিক মাত্রার হর্ন লাগাতে হবে, গাড়িচালককে অযথা হর্ন বাজানো বন্ধ করতে হবে, সকল যানবাহনকে ট্রাফিক আইন মেনে চলতে হবে। পথচারীগণ যথানিয়মে রাস্তা পারাপার করলে হর্ন বাজানোর প্রয়োজনীয়তা কমে যাবে। মন্ত্রী বলেন, নির্মাণ কাজে নিয়ম মেনে ও আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করলে এ ক্ষেত্রে শব্দদূষণ কমে আসবে। সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানে উচ্চ শব্দের মাইক ব্যবহার বর্জন করতে হবে। অর্থাৎ সচেতন ও নিয়ন্ত্রিত আচরণই শব্দদূষণের সকল অনাকাঙ্ক্ষিত পরিণতি থেকে আমাদের মুক্তি দিতে পারে।
কর্মশালায় শব্দদূষণ (নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালা ২০০৬ অনুযায়ী দণ্ড ও জরিমানা এবং ভুক্তভোগীরা থানায় টেলিফোন, মৌখিক, লিখিত অভিযোগ কীভাবে করতে পারবেন সে বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরা হয়।