ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্টকারী অশুভ শক্তিকে ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবিলা করতে হবে

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ১৭, ২০২২ , ৯:৪৩ অপরাহ্ণ

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মোঃ ফরিদুল হক খান, সংগৃহীত চিত্র।

ঢাকা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মোঃ ফরিদুল হক খান বলেছেন, অশুভ শক্তি সম্পদ গ্রাসের লোভে অথবা রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিলের জন্য ধর্মকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্ট করে। এধরনের অশুভ শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে মোকাবিলা করতে হবে। তিনি বলেন, ইসলাম, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টানসহ প্রতিটি ধর্মগ্রন্থে প্রতিবেশীর প্রতি ভালোবাসা প্রদর্শন করে নিজেকে উন্নত মানুষে পরিণত করার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। প্রতিমন্ত্রী শনিবার ধর্মরাজিক বৌদ্ধ মহাবিহার (বিশুদ্ধানন্দ- শুদ্ধানন্দ মিলনায়তন) সবুজবাগ, ঢাকায় বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট আয়োজিত ‘বাংলাদেশের ধর্মীয় সম্প্রীতি সুদৃঢ়করণের চ্যালেঞ্জ ও করণীয়’ শীর্ষক আন্তঃধর্মীয় সংলাপ -২০২২ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের পারস্পরিক সম্পর্ক বৃদ্ধি করতে হবে। এর জন্য সব কিছুর আগে ভালো মানুষ হতে হবে। মানুষ হিসেবে মানুষকে সম্মান করা শিখতে হবে। তিনি বলেন, আমাদের হাজার বছরের এক সাথে থাকার ঐতিহ্য, সংবিধান প্রদত্ত অধিকার, মহান মুক্তিযুদ্ধের মহান আদর্শ, ধর্ম গ্রন্থসমূহের নীতি নির্দেশ দেশের ধর্মীয় সম্প্রীতির ভিত্তিকে সুদৃঢ় করেছে। প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং পরিবারের শিক্ষার মধ্যে অন্য ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের বিষয়ে দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে হবে। তিনি বলেন, প্রতিটি ধর্মীয় জনগোষ্ঠীর ধর্মীয় অধিকার সংরক্ষণ, আচার অনুষ্ঠান পালন এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করেছে। বাংলাদেশের ধর্মীয় সম্প্রীতির পরিবেশ রক্ষায় প্রত্যেক নাগরিককে স্ব স্ব অবস্থান হতে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে। বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ভাইস চেয়ারম্যান সুপ্ত ভূষণ বড়ুয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আন্তঃধর্মীয় সংলাপে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন খ্রিস্টান ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ভাইস চেয়ারম্যান ড. নমিতা হালদার, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের (ভারপ্রাপ্ত) মহাপরিচালক ও ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (সংস্থা) মোঃ মুনিম হাসান ও সেভ এন্ড সার্ভ ফাউন্ডেশন-বাংলাদেশ এর চেয়ারম্যান সৈয়দ তয়বুর বাশার, বাংলাদেশ বুদ্ধিস্ট ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ভিক্ষু সুনন্দপ্রিয়, বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের মহাসচিব অধ্যাপক ড. বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া, সম্প্রীতি বাংলাদেশ এর যুগ্ম আহ্বায়ক প্রফেসর ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া, বাংলাদেশ বুদ্ধিস্ট উইমেন ফেডারেশন সভাপতি অধ্যাপক ডা. দীপি বড়ুয়া, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার প্রশান্ত ভূষণ বড়ুয়া, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের সচিব ডা. দীলিপ কুমার ঘোষ, বাংলাদেশ বৌদ্ধ যুব পরিষদ জাতীয় কমিটির চেয়ারম্যান সতু বড়ুয়া, আন্তঃধর্মীয় সংলাপে আলোচক হিসেবে বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ কওমী মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড (বেফাক) এর মহাপরিচালক মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পালি ও বুদ্ধিস্ট স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. বিমান চন্দ্র বড়ুয়া, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃত বিভাগের অধ্যাপক ড. অসীম সরকার ও আর্চবিশপ বিজয় এন ডি’ ক্রশ।