ব্রাসিলিয়াস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে শেখ রাসেল দিবস পালিত

প্রকাশিত : অক্টোবর ১৯, ২০২২ , ৬:৪৩ অপরাহ্ণ

ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: যথাযথ মর্যাদায় দক্ষিণ আমেরিকার একমাত্র বাংলাদেশ দূতাবাস ব্রাসিলিয়াতে বাংলাদেশী ও ব্রাজিলীয় শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিব- এঁর কনিষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ রাসেলের ৫৯তম জন্মদিবস উপলক্ষ্যে ‘শেখ রাসেল দিবস’ পালন করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৮ই অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭ টায় দূতাবাস প্রাঙ্গণে আয়োজিত অনুষ্ঠানের শুরুতেই ব্রাজিলে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত সাদিয়া ফয়জুননেসা শহীদ শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এসময় শেখ রাসেলের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত বাণী পাঠ করা হয় এবং শহীদ শেখ রাসেলের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। ব্রাসিলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশী শিশুরা দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘শেখ রাসেল নির্মলতার প্রতীক, দুরন্ত প্রাণবন্ত নির্ভীক’- বিষয়ে অনুপ্রাণিত হয়ে চিত্রাঙ্কন পর্বে অংশগ্রহণ করে। এছাড়াও শহীদ শেখ রাসেলের উপর নির্মিত বিশেষ প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শিত হয়। উপস্থিত অতিথিবৃন্দ ও শিশু-কিশোররা প্রামাণ্যচিত্রটি প্রদর্শন-কালে শোকাবহ হয়ে পড়েন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি সম্মান জানিয়ে স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের সাফল্য-গাঁথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত সাদিয়া ফয়জুননেসা বাংলাদেশ নামটিকে সদা গৌরবান্বিত রাখার জন্য ব্রাজিলে বসবাসকারী প্রবাসী ভাই-বোনদের অনুরোধ জানান। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের নির্মম হত্যাকাণ্ডকে ইতিহাসের নৃশংসতম ও বর্বরতম হত্যাকাণ্ড হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিলম্বে হলেও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুদৃঢ় নেতৃত্বের ফলে ঘৃণিত হত্যাকারীদের বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা সম্ভব হয়েছে। শেখ রাসেলসহ ১৫ আগস্টের নির্মম হত্যাকাণ্ডের পলাতক খুনিদের অবস্থান ও সংশ্লিষ্ট যে কোন তথ্য দূতাবাসকে তাৎক্ষণিক-ভাবে জানিয়ে তাদেরকে বিচারের আওতায় এনে দেশের প্রতি নিজ কর্তব্যপালনের অনুরোধ করে রাষ্ট্রদূত উপস্থিত সকলকে সদা-সতর্ক ও সজাগ থাকার আহবান জানান।
রাষ্ট্রদূত ফয়জুননেসা তাঁর বক্তব্যে শেখ রাসেল দিবসের প্রতিপাদ্য ‘শেখ রাসেল নির্মলতার প্রতীক, দুরন্ত প্রাণবন্ত নির্ভীক’ অবলম্বনে প্রবাসে বসবাসরত সকল অভিভাবকদের তাদের সন্তানদের আত্মপ্রত্যয়ী হিসেবে গড়ে তোলার আহ্বান জানান। রাষ্ট্রদূত ফয়জুননেসা বলেন, আমাদের সন্তানরা শুধু স্ব স্ব দেশের নয় সমগ্র বিশ্বের ভবিষ্যৎ কর্ণধার, তাই তাদেরকে অসাম্প্রদায়িকতা, সৌহার্দ্য, সম্প্রীতি ও সহমর্মিতার শিক্ষায় শিক্ষিত করে তোলার দায়িত্ব আমাদের সকলের। তিনি বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের ইতিহাস, বঙ্গবন্ধু, ১৫ আগস্ট-এর ঘৃণিত হত্যাকাণ্ড সম্বন্ধে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সঠিক ইতিহাস জানানোর জন্য অভিভাবকদের অনুরোধ জানান। শেখ রাসেল দিবস-২০২২ উপলক্ষ্যে আয়োজিত সাংস্কৃতিক পর্বে ব্রাসিলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশী শিশুদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে দেশাত্মবোধক কবিতা, আবৃত্তি, গান ও নাচ পরিবেশিত হয়। অনুষ্ঠানের অন্যতম মূল আকর্ষণ ছিল শহীদ শেখ রাসেলের সম্মানে ব্রাসিলিয়াস্থ Centro Cultural Escola do Mundo-এর ব্রাজিলিয়ান শিশু শিল্পীগোষ্ঠীর অংশগ্রহণে ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী শিল্পকলা “কাপুয়েরা”- এর একটি বিশেষ পরিবেশনা যা ইউনেস্কো কর্তৃক ঘোষিত একটি সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য। অনুষ্ঠানের শেষে রাষ্ট্রদূত সাংস্কৃতিক পর্বে অংশ নেয়া সকল শিশু-কিশোর ও ‘কাপুয়েরা’ শিল্পীদের সাথে নিয়ে কেক কাটেন এবং তাদের মাঝে পুরষ্কার ও সনদ বিতরণ করেন।