বাংলাদেশ ফিলিপিন্স দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন

প্রকাশিত : নভেম্বর ১৮, ২০২২ , ৮:৪০ অপরাহ্ণ

ম্যানিলা, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: বাংলাদেশ-ফিলিপিন্স দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক স্থাপনের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে ম্যানিলাস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস ও ফিলিপিন্স বিশ্ববিদ্যালয় যৌথভাবে ‘বাংলাদেশ-ফিলিপিন্স সম্পর্কের ৫০বছর: অর্জন, চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনাসমূহ’ শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করেছে। বৃহস্পতিবার ফিলিপিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের এশিয়ান সেন্টারের জিটি-টয়োটা অডিটোরিয়ামে সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হয়। সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে আয়োজিত এ সেমিনারে দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভিডিও-বার্তা প্রদর্শিত হয় । সেমিনারে ক্যাম্পাস উপাচার্য অধ্যাপক ফিদেল নেমেঙ্গো তার স্বাগত বক্তৃতায় ১৯৭৩ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যানিলায় সংক্ষিপ্ত সফরের কথা উল্লেখ করে বলেন, এই সফরের মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের শক্ত ভিত্তি স্থাপিত হয়েছিল। তিনি বলেন, দক্ষিণ এশিয়া ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের দু’টি দেশ হিসেবে সামাজিক, অর্থনৈতিক, নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন ইস্যুতে ফিলিপিন্স এবং বাংলাদেশের অভিন্ন স্বার্থ রয়েছে। দু’দেশের মধ্যকার পারস্পরিক যোগাযোগ বৃদ্ধির মধ্য দিয়ে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরো গভীর হবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেন। রাষ্ট্রদূত এফ এম বোরহান উদ্দিন তাঁর বক্তব্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের চলমান উন্নয়ন অভিযাত্রা, ভবিষ্যৎ রূপকল্প ও অনন্য সাফল্যসমূহ তুলে ধরেন। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের অব্যবহিত পরেই ফিলিপিন্স সরকার ও জনগণের দেয়া সমর্থনের কথাও তিনি কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন । তিনি বাংলাদেশ-ফিলিপিন্সের মধ্যে কৃষি, ঔষধ, শিক্ষা, আইসিটি, ট্যুরিজম এবং জনগণের সঙ্গে জনগণের যোগাযোগসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বহুমুখী সহযোগিতা সম্প্রসারণের বিষয়ে আলোকপাত করেন। ফিলিপাইন পররাষ্ট্র দপ্তরের এশিয়া ও প্যাসিফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত প্রধান মারিয়া আনা লিলিয়া তাঁর বক্তব্যে বলেন, ঐতিহাসিকভাবে বাংলাদেশ-ফিলিপিন্সের মধ্যে অনেক সাদৃশ্য রয়েছে। তিনি বাংলাদেশ-ফিলিপিন্স মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তিতে দু’দেশের সম্পর্ক ভবিষ্যতে নতুন উচ্চতায় উন্নতকরণে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এশিয়ান সেন্টারের ডিন অধ্যাপক হেনেলিতো সেভেলিয়া। অধ্যাপক হেনেলিতো বাংলাদেশ-ফিলিপিন্সের সম্পর্কের ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট তুলে ধরে প্রাসঙ্গিক বিভিন্ন বিষয়ে আলোকপাত করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিলিমান ক্যাম্পাস উপাচার্য অধ্যাপক ফিদেল নেমেজো, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মা তেরেসা পায়ঙ্গায়ং, এশিয়ান সেন্টারের ডিন অধ্যাপক হেনেলিতো সেভেলিয়া, ফিলিপাইন পররাষ্ট্র দপ্তরের এশিয়া ও প্যাসিফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত প্রধান মারিয়া আনা লিলিয়া, ডিপ্লোম্যাটিক কোরের ডিন ও কূটনীতিকবৃন্দ, বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষদবৃন্দ, মিডিয়া-কর্মী এবং শিক্ষার্থীরা সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন।