ঝিনাইদহে শিয়াল ধরতে গিয়ে বিশাল মেছো বাঘ আটক

প্রকাশিত : জানুয়ারি ২৩, ২০২৩ , ৫:৪৯ অপরাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসী, নিজস্ব প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ঝিনাইদহে শিয়াল ধরার ফাঁদে বিশাল মেছো বাঘ ধরা পড়ার ঘটনা ঘটেছে। রাতের কোন এক সময়ে হরিণাকুন্ডু উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামে বিশাল মা বাঘটি তার সন্তান বাঁচাতে এসে ঐ ফাঁদে আটকা পড়ে। পরে এলাকাবাসী মা-সন্তান উভয়কেই একটি খাঁচায় আটকে রেখেছে।অন্যদিকে এ ঘটনা জানাজানি হলে পুরো এলাকার মানুষ বাঘ ও শাবককে এক নজর দেখতে ভীড় করছে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েকদিন ধরে সন্ধ্যার পর থেকেই রঘুনাথপুর মাঠের পাশের জঙ্গলে আজব ডাকাডাকির শব্দ শুনি । যেহেতু এলাকার মানুষ নিয়মিত মাঠের পাশের রাস্তাগুলো ব্যবহার করে সে কারণে আমরা তৎপর থাকি যাতে বড় কোন ঘটনা না ঘটে। গত কাল দুপুরে সোলাইমান মোল্লার বাড়ির পাশের খড়কি ঘরে মেছো বাঘের বাচ্চা পাওয়া যায়। পরে কেউ যেন ওর ক্ষতি করতে না পারে সে কারণে ওকে নিরাপদে এলাকার ওনার বাড়িতে রাখা হয়। সোলাইমান মোল্লা জানান, বাড়িতে থাকা অবস্থায় মা ছাড়া শাবক আরও বেশী মাত্রায় ডাকাডাকি করতে থাকে। পরে গতকাল রাতেই আমার শিয়াল ধরার ফাঁদ বসিয়ে ঐ জঙ্গলের পাশে রেখে আসা হয়। ঐ রাতেই বিকট গর্জনের শব্দে এলাকাবাসী একসাথে গিয়ে দেখি বিশাল একটি মেছো বাঘ আটকা পড়েছে। এখন পর্যন্ত মা ও শাবক দুজনেই সুস্থ ও নিরাপদে আছে। প্রশাসনের লোকদের জানানো হয়েছে। তারা এসে যা ভালো হয় করবে। হরিনাকুন্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্বাস্বতী সাহা জানান, এ ঘটনা শোনার পর সাথে সাথে রোক পাঠানো হয়েছে। সেই সাথে ফরেস্ট ডিপার্টমেন্টকে কবর দেওয়া হয়েছে। মা ও শাবক বর্তমানে দুজনেই নিরাপদে আছে। ফরেস্ট ডিপার্টমেন্টের লোক আসলেই তাদের সাথে আলোচনা করে যা ভালো হয় তাই করা হবে। মেছো বাঘ সাধারণত নদীর ধারে, পাহাড়ি ছড়া এবং জলাভূমিতে বাস করে। এরা সাঁতারে পারদর্শী হওয়ায় এ ধরনের পরিবেশে সহজেই খাপ খাওয়াতে পারে। এদের গায়ে ছোপ ছোপ চিহ্ন থাকার জন্য চিতাবাঘ বলেও ভুল করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে ওই এলাকার আশপাশের আরও মেছো বাঘের সঙ্গী থাকতে পারে। তাই মানুষকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।