ঠাকুরগাঁওয়ে যুবকের মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত : জুলাই ২৭, ২০২২ , ৬:২৩ অপরাহ্ণ

বিধান দাস, ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ঠাকুরগাঁওয়ে হত্যা মামলায় মো: মাফিজুল ইসলাম (২৩) নামে এক যুবকের মৃত্যুদন্ডাদেশ প্রদান করা হয়েছে। বুধবার(২৭ জুলাই) ঠাকুরগাঁও বিজ্ঞ জেলা ও দায়রা জজ মামুনুর রশিদ ওই আসামীর মৃত্যুদণ্ড ও ১ লাখ টাকা জরিমানার আদেশ প্রদান করেন। আসামী পলাতক রয়েছেন। আদালত সূত্রে জানা যায়, জেলার রানিশংকৈল উপজেলার বলিদ্বারা গ্রামের মৃত রিয়াজ আলীর ছেলে মাফিজুল ইসলাম একই গ্রামের মো: দুলাল হোসেন (মামলার বাদী)’র স্ত্রী মোছা: জ্যোৎস্না বেগম (২০) এর সাথে জোরপূর্বক প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলতে চায়। কিন্তু এতে সারা না পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে ২০১২ সালে ২ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় ভিকটিমের বাড়িতে প্রবেশ করে ২ সন্তানের সামনে জ্যোৎস্না বেগমকে এলোপাথাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় সে। এতে ঘটনাস্থলেই জ্যোৎস্না বেগমের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় তার স্বামী মো: দুলাল হোসেন (২৭) ওই দিন রাতেই রানিশংকৈল থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় উল্লেখ করা হয় হত্যাকান্ডের ঘটনার ২ বছর পূর্বে একই ভাবে দুলাল হোসেন জোরপূর্বক জ্যোৎস্না বেগমের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলতে চাইলে ঝামেলা হলে গ্রাম্য শালিসের মাধ্যমে দুলাল ১৫ হাজার টাকা জরিমানা প্রদান করেন। এরই ক্ষোভ থেকে ২ বছর পর এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে সে বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়। মামলায় রাষ্ট্র-পক্ষের কৌসুলি ছিলেন এ্যাড. শেখর কুমার রায়। তিনি বলেন, নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা ও নারীর প্রতি যে কোন ধরনের সহিংসতা বন্ধে এটি একটি যুগান্তকারী রায়। আদালত ৮৩/২০১৫ নং মামলায় একমাত্র আসামী মাফিজুল ইসলামের বিরুদ্ধে রাষ্ট্র-পক্ষে দণ্ডবিধি ৩০২ ধারায় আনিত অভিযোগ সন্দেহাতীত ও সন্তোষজনকরুপে প্রমাণিত হওয়ায় পেনাল কোডের ৩০২ ধারার বর্ণিত সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত এবং একই সাথে ১ লাখ টাকা জরিমানার আদেশ প্রদান করেন। রায়ে আরও উল্লেখ করা হয় মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের অনুমোদন সাপেক্ষে দণ্ডিত আসামী মাফিজুল ইসলাম কে যতক্ষণ পর্যন্ত তার মৃত্যু না হয় ততক্ষণ পর্যন্ত ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যু দণ্ডাদেশ কার্যকর করার জন্য এবং জরিমানার অর্থ আইন মোতাবেক আদায় করে ভিকটিমের সন্তানদের প্রদান করার জন্য জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।