ক্ষেতে বিষ দিয়ে পাখি হত্যার অভিযোগ

প্রকাশিত : আগস্ট ১৬, ২০২২ , ৫:৫৬ অপরাহ্ণ

হেলালী ফেরদৌসি, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি, ব্রডকাস্টিং নিউজ কর্পোরেশন: ঝিনাইদহের মহেশপুরের সীমান্তবর্তী চাবরার মাঠে ফসলের ক্ষেতে বিষ প্রয়োগ করে শতাধিক পাখি হত্যার অভিযোগ উঠেছে কৃষক মোজাফফর হোসেনের বিরুদ্ধে। তিনি পার্শ্ববর্তী গ্রামের সলেমান সরদারের পুত্র। তবে এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নিতে মহেশপুর থানায় কোনো অভিযোগ দেওয়া হয়নি। সূত্রে জানা গেছে, বেশ কিছুদিন আগে উপজেলার চাবরার মাঠে নিজের প্রায় এক বিঘা জমিতে মাসকলাই বপন করেন কৃষক মোজাফফর হোসেন। কয়েক দফায় বিভিন্ন পাখি ক্ষেতে এসে তা খেয়ে কিছুটা ক্ষতিগ্রস্ত করে। এরপর ওই কৃষক পাখির হাত থেকে কলাই রক্ষার্থে শনিবার (১৩ আগস্ট) দিনের কোনো একসময় ধানের সঙ্গে কীটনাশক মিশিয়ে ক্ষেতের চারপাশে ছিটিয়ে দেন। এরপর থেকে ওই ক্ষেতে আসা শালিক, ঘুঘু, কবুতরসহ বিভিন্ন প্রজাতির পাখি বিষ মিশানো ধান খেয়ে মারা যেতে থাকে। সর্বশেষ সোমবার (১৫ আগস্ট) পর্যন্ত প্রায় ২০০ পাখি মারা গেছে বলে জানা গেছে। তবে এ সংখ্যা ঠিক কত তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর সোমবার (১৫ আগস্ট) সন্ধ্যায় কৃষক মোজাফফর হোসেন এলাকাবাসীর চাপে মৃত পাখিগুলো মাটিচাপা দেন বলে জানা গেছে। স্থানীয় এক কলেজ-ছাত্র আতিকুর রহমান বলেন, ‘আমাদের বাড়ির গাছে ঘুঘু পাখির বাসা আছে। হঠাৎ দেখি রোববার দুটি পাখি মরে পড়ে আছে। খুবই খারাপ লাগছিল। পরে মনে হলো দেখি মাঠে গিয়ে কেউ কোনো ক্ষেতে বিষ দিয়েছে কি না। এরপর মাঠে গিয়ে দেখি নেপা গ্রামের কৃষক মোজাফফর হোসেনের কলাই ক্ষেতে অনেক পাখি মরে পড়ে আছে। পরে জানলাম তিনি ধানের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে ছিটিয়ে রেখেছিলেন।’ এ বিষয়ে কৃষক মোজাফফর হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। মহেশপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নয়ন কুমার রাজবংশীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। এ বিষয়ে মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সেলিম মিয়া বলেন, পাখি হত্যার বিষয়ে শুনেছি। তবে এ বিষয়ে এখনো থানায় কেউ অভিযোগ দেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।